ডার্বির ২৪ ঘণ্টা আগেও অনিশ্চিত ডং

কলকাতা: এবারের ন’দলের আই-লিগ লড়াইয়ে অন্যতম সেরা আক্রমণ ভাগ মোহনবাগানের৷ সে ব্যাপারে প্রায় সকলেই একমত৷ সনি নর্ডি, কর্নেল গ্লেন ও বলবন্তের মতো ফুটবলাররা যে দলে আছেন, সে দলকে অন্য চোখে দেখতেই হবে৷

শনিবার লিগের প্রথম ডার্বি৷ সেই চিরাচরিত ইস্ট-মোহন প্রতিদ্বন্দ্বীতা৷ নর্ডি-গ্লেনদের থামাতে ইস্টবেঙ্গলের ভরসা ডং-র‍্যান্টি৷ কিন্তু ম্যাচের ২৪ ঘণ্টা আগেও লাল-হলুদ কোচ নিশ্চিত করে বলতে পারছেন না যে আদৌ কোরিয়ান বোম্বার কালকে খেলবেন কিনা? কারণ ডংয়ের চোট রয়েছে৷ যদিও শুক্রবার পুরো প্র্যাকটিসই করেছেন তিনি৷ আলাদা করে ফ্রি-কিকও মেরেছেন তিনি৷ কিন্তু প্র্যাকটিস শেষে বিশ্বজিৎ বলছেন,‘ডংকে নিয়ে ভাবছি কী করব? সম্ভবতও প্রথম একাদশে নাও থাকতে পারে৷ ওর পায়ে চোট আছে৷ কালকেই ডংকে নিয়ে সিদ্ধান্ত নেব৷’ ইস্টবেঙ্গল কোচের এই কথা নিয়েই বেশ কিছুটা ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছে৷ এটা কী বিশ্বজিতের মাইন্ড গেম নাকি সত্যিই ডং কালকে নামবেন না?

মোহনবাগানে এবার সুপারস্টারদের ছড়াছড়ি৷ কাগজে-কলমে প্রত্যেকেই বড় ম্যাচে বাগান শিবিরকে ফেভারিট ধরেছে৷ কিন্তু বিশ্বজিৎ বলছেন,‘এটা যারা ভাবছে তাদের উপর৷ আমার কাছে নয়৷’ মোহনবাগানের চার বিদেশি ফুটবলারই নামবে কালকে৷ অন্যদিকে, ইস্টবেঙ্গল নামবে তিন বিদেশিকে নিয়েই৷ বড় ম্যাচে বিদেশিরা একটা ফারাক গড়ে দেয়৷ তাহলে ইস্টবেঙ্গল কি বিদেশি ইস্যুতে কিছুটা হলেও ব্যাকফুটে? বিশু সাফ বললেন,‘আমাদের দলের ভারতীয়রা যে কোনও বিদেশির থেকে ভালো পারফর্ম করেছে৷ তাদের উপর অগাধ আস্থা আছে আমার৷ এটা ম্যাচে কোনও প্রভাব ফেলবে না৷’

- Advertisement -

ইস্টবেঙ্গলের সঙ্গে একটা কথা এখন জুড়ে গিয়েছে৷ পিছিয়ে থেকে যে দলটা লড়াইতে ফিরে আসে তার নামই লাল-হলুদ৷ এবিষয়টাও মানতে নারাজ বিশ্বজিৎ৷ তিনি বললেন,‘ আমরা কোনওভাবেই পিছিয়ে নেই৷ দলের কোনও পজিসন নিয়েই আমি চিন্তিত নই৷ প্রতিদিনই আমাদের পরীক্ষা দিতে হয়৷ কালকেও আমরা সেরকমই একটা পরীক্ষায় নামব৷’ গতবারের ডার্বির ফল কী কোনওভাবে এগিয়ে রাখছে ইস্টবেঙ্গলকে? বিশ্বজিৎ বলছেন,‘ভালো জিনিস ভুলে যাই৷ খারাপ গুলো মনে রাখি৷’ বার্নাড মেন্ডি ডার্বিতে আসছেন না একথা একেবারে নিশ্চিত৷ কিন্তু বিশ্বজিতের কথায় অন্যরকম সুর৷ বার্নাড ক্লোজড চ্যাপটার কিনা জানতে চাওয়া হলে তিনি বললেন,‘রাজনীতি বা খেলায় ক্লোজড চ্যাপটার বলে কিছু হয় না৷’

ডংয়ের পাশাপাশি র‍্যান্টিরও ঘাড়ে চোট রয়েছে৷ যদিও এব্যাপারে কোচ কিছু বললেন না৷ তবে এদিনই প্রথম প্র্যাকটিস করলেন কেভিন লোবো৷ কালকের ম্যাচে তাঁকে মাথায় রেখেছেন কোচ৷ সেও দলে ফিরতে পারে বলে মত বিশ্বজিতের৷ অন্যদিকে, নারায়ণ দাস শেষ ১১ দিনেও ম্যাচ-ফিট হতে পারেননি৷ নারায়ণ দাসকে আরও সময় দিতে চান বিশ্বজিৎ৷ এদিন লাল-হলুদ কোচ বললেন যে, ‘দেশের অন্যতম সেরা ফুটবলার’ নারায়ণকে তিনি কালকের ম্যাচের জন্য ভাবতে পারেন৷

মোহনবাগানকেও যথেষ্ট সমীহ করছেন বিশ্বজিৎ৷ তিনি বলছেন,‘ মোহনহবাগান দল অত্যন্ত শক্তিশালী৷ আলাদা করে কারোর কথা বলব না৷ পুরো দলটাই ভালো৷ ওরা আগের বার আই-লিগ পেয়েছে৷ ওদের কোচও দারুণ৷ একজন প্রকৃত জেন্টলম্যান৷ আমরা বিপক্ষের প্রতিটা দলকেই শ্রদ্ধা করি৷ মোহনবাগানও তার ব্যতিক্রম নয়৷’ডার্বি জিতে আই-লিগে এগিয়ে যাওয়ার তত্ত্ব মানতে নারাজ বিশু৷ তাঁর মতে ম্যারাথন এই লিগে তিনি ম্যাচ বাই ম্যাচই ভাবতে চান৷ ডার্বিতে ইস্টবেঙ্গলের সম্ভাব্য একাদশ অনেকটা এরকম: গোলে রেহনেশ৷ ডিফেন্সে রবার্ট-অর্ণব-বেলো-ভেকে৷ মাঝমাঠে মেহতাব-খাবড়া-অবিনাশ-জায়রু৷ ফরোয়ার্ডে ডং-র‍্যান্টি৷

Advertisement
-----