বাচ্চাকে বাঁচাতে চাইলে গর্ভাবস্থায় মিষ্টি একদম নয়

কখনও টক তো কখনও ঝাল। গর্ভবতী মায়েদের খাওয়ার খাওয়ার ইচ্ছার শেষ নেই। তবে অনেক সময় অন্তঃসত্ত্বা মহিলাদের মিষ্টিতে প্রীতি দেখা দেয়। সকাল -বিকাল চায়ে দু’চামচ করে বেশি চিনি। তাছাড়া আজ রসোগোল্লা, কাল সন্দেশ চাহিদার শেষ নেই। তবে সাবধান আপনার মিষ্টিমুখ গর্ভের সন্তানের কোনও ক্ষতি করছেন না তো। সম্প্রতি অন্তঃসত্ত্বা মহিলাদের উদ্দেশ্যে সাবধানবাণী শুনিয়েছেন একদল পশ্চিমী গবেষক। তাঁদের দাবি, যেসব মায়ের গর্ভাবস্থায় বেশি মিষ্টি খান, তাঁদের গর্ভজাত সন্তানদের মধ্যে অ্যাজমা বা হাঁপানির ঝুঁকি দ্বিগুণ বেড়ে যায়।

‘দ্য অভ্যান লংগিচুডিয়াল স্টাডি অফ পেরেন্টস অ্যান্ড চিলড্রেন’ নামে এক গবেষণায় ৯ হাজার মা ও তাঁদের সন্তানদের বেছে নেওয়া হয়। এই গবেষণায় যেহেতু ১৯৯০ সালে যেসব মহিলারা মা হয়েছিলেন, তাঁদের ওপর করা হয় তাই এই গবেষণকে ‘ চিলড্রেনস অফ দ্য 90s’ ও বলা হয়। এই গবেষণার ভিত্তিতে বলা হয়, যেসব মহিলারা গর্ভাবস্থায় বেশি চিনি খান তাঁদের সন্তানদের মধ্যে অ্যাজমা বা হাঁপানির ঝুঁকি কয়েকগুণ বেড়ে যায়। আর তাই অন্তসত্ত্বা মহিলাদের কম চিনি খাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন গবেষকরা।

যদিও এই গবেষণার প্রধান সইফ শাইন বলেন, গর্ভাবস্থায় বেশি চিনি খেলে গর্ভজাত সন্তানের মধ্যে অ্যাজমার আশঙ্কা বেড়ে যায় ঠিকই, তবে চিনি খেলেই যে অবধারিত অ্যাজমা বা
হাঁপুনি হবে এমনটা নয়।

Advertisement ---
-----