নাট্যচর্চার প্রসারে বছরভর বিনামূল্যে চলবে প্রশিক্ষণ

স্টাফ রিপোর্টার, তমলুক: কোনও জাতির পরিচয় তার শিল্প, সংস্কৃতি, কৃষ্টি৷ তৃণমূল স্তর থেকে পড়ুয়াদের মধ্যে নাটকের আগ্রহ ও নাট্য চর্চার প্রসারের লক্ষ্যে বিনামূল্যে নাট্য প্রশিক্ষনের আয়োজন করেছে মহিষাদল গয়েস্বরী উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় ও মহিষাদল শিল্পকৃতি। স্কুলের ৭৫ জন ছাত্রীকে নিয়ে বর্ষব্যাপী এই প্রশিক্ষণ শিবিরের পথ চলা শুরু হল শনিবার থেকে৷ গয়েস্বরী উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের ছাত্রীরা ছাড়াও মহিষাদলের আগ্রহী পড়ুয়ারাও প্রশিক্ষণ শিবিরে অংশ নিতে পারবে৷

আরও পড়ুন: মমতার বিরুদ্ধে অস্ত্র শানাতে দশভুজাকে ভরসা বিজেপির

মহিষাদল গয়েশ্বরী উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা পারমিতা গিরি জানান, ‘‘স্কুলে ছাত্রীদের নাটকের উপর প্রচুর আগ্রহ রয়েছে। তাদের স্কুলের শিক্ষিকারা তালিম দিয়ে রাজ্য ও দেশের বিভিন্ন প্রতিযোগিতা অংশগ্রহন করে সফল হয়েছে। স্কুলের ছাত্রীরা দলগত বা এককভাবে অনেক পুরষ্কার অর্জন করেছে। তাই স্কুলের ছাত্রীদের পাশাপাশি মহিষাদলের নাটকের আগ্রহিদের প্রশিক্ষন দেওয়ার জন্য বিনামূল্যে বর্ষব্যাপী নাট্য প্রশিক্ষনের ব্যবস্থা করা হয়েছে।আশাকরি আগামীদিন এর সুফল পাবে মহিষাদলের মানুষ।’’ স্কুলের ক্লাস শেষে প্রতি শনিবার ১.৪৫ মিনিট থেকে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত চলবে নাট্য প্রশিক্ষণ শিবির৷

- Advertisement -

নাটকের েই প্রশিক্ষণ শিবিরে শেকানো হবে, নাটক লেখা, পুতুল ও মুখোশ তৈরি, মুকাভিনয়, মঞ্চসজ্জা, কস্টিউম পরিকল্পনা, আবহ নির্মাণ, নাটকের গান, আলোক পরিকল্পনা,অভিনয়, নির্দেশনা, নাটকের ইতিহাস, সংলাপ সহ অন্যান্য বিষয়সমূহ।

আরও পড়ুন: অমিতের সভায় তৃনমূলের পতাকা ব্যানার ছিঁড়ে ‘বদলা’ বিজেপির

মহিষাদল শিল্পকৃতির কর্নধার সুরজিৎ সিনহার মতে, ‘‘রাজ্যে ও রাজ্যের বাইরে নাট্যচর্চার প্রসার ঘটানোর লক্ষ্যে আমরা একাধিক পরিকল্পনা গ্রহন করেছি। স্কুল পড়ুয়াদের প্রশিক্ষন, আন্তঃ জেলা স্কুল পড়ুয়াদের নাট্য প্রতিযোগিতা, নাটকের কর্মশালা, আন্তঃ রাজ্য নাট্য প্রতিযোগিতা সহ একাধিক কাজ হচ্ছে। নাম করা অভিনেতা, অভিনেত্রী ও নাট্য জগতের দিকপালরা প্রশিক্ষণ শিবিরে থাকবেন৷’’

ছোটদের মধ্যে নাটকের আগ্রহ ও নাট্য চর্চার প্রসারের লক্ষ্যে মহিষাদল গয়েস্বরী উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় ও মহিষাদল শিল্পকৃতির েই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন নাট্যকার,অভিনেতা তথা রাজ্যের মন্ত্রী ব্রাত্য বসু৷ তিনি বলেন, ‘‘বর্তমান সময়ে পড়াশোনার পাশাপাশি সাংষ্কৃতিক চর্চা ও খেলাধুলার প্রয়োজনীয়তা বাড়ছে। তাই পড়াশোনার পাশাপাশি সাংস্কৃতি চর্চার দিকেও নজর দিতে হবে। এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাই৷’’

Advertisement
----
-----