স্টাফ রিপোর্টার, হলদিয়া: গত একমাস ধরে বেহাল স্কুলের পানীয় জলের কল৷ ঘটনায় স্কুলের মেনগেটে তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ দেখাল ক্ষুব্ধ ছাত্রীরা। মঙ্গলবার ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার সুতাহাটা থানার হরিণভাষা নিবেদিতা বালিকা শিক্ষানিকেতনে।

জানা গিয়েছে, স্কুলের ছাত্রীদের জন্য একটি হোস্টেল রয়েছে। যেখানে প্রায় দেড়শো জন ছাত্রী থাকে। হোস্টেলের অন্যতম পানীয় জলের মাধ্যম হিসেবে রয়েছে একটি সাবমারসিবল ও একটি পানীয় জলের কল। যার মধ্যে সাবমারসেবলটি প্রায় এক মাস ধরে বেহাল হয়ে পড়ে রয়েছে। ঘটনা ভ্রূক্ষেপ নেই হোস্টেল কর্তৃপক্ষের। বারবার প্রধান শিক্ষককে জানিয়েও কোনও সুরাহা মেলেনি বলে জানান স্কুলের ছাত্রছাত্রীরা। এর ঠিক কিছুদিন পর অর্থাৎ গত শনিবার খারাপ হয়ে যায় বাকি জলের কলটিও। এরপর স্কুল কর্তৃপক্ষ স্থানীয় ব্লক সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক ও স্কুলের প্রশাসকের কাছে কলটি সারাইয়ের ব্যাপারে আবেদন জানান।

এরপর মাননীয় ব্লক সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক মহাশয় কল সারানোর ব্যাপারে আশ্বাস দেন। তিনি জানিয়েছিলেন, সোমবার কল সারানোর কাজ হবে। এদিকে কল খারাপ হয়ে যাওয়ার ফলে হোস্টেলের ছাত্রীরা প্রায় এক কিলোমিটার দূরে একটি কল থেকে পানীয় জল এনে ব্যবহার করতে হচ্ছে। সেখানে কলে জল আনতে গিয়ে নানান সমস্যার মধ্যে পড়তে হয় ছাত্রীদের।

আরও পড়ুন: শহরে হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ল দু’টি বহুতল, মৃত ২

স্কুলের এক ক্ষুব্ধ ছাত্রী জানান, শনিবারের পর থেকে প্রায় এক কিলোমিটার দূরে জল আনতে যেতে হচ্ছে। সেখানে গিয়ে তাঁদের নানান কটুক্তির স্বীকার হতে হয়। এমনকী সেখানে তাঁদের জল নিতে বাধা দেওয়া হয়। ফলে এমন পরিস্থিতিতে তাঁরা স্কুল কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি করছে যাতে এই কল খুব শীঘ্র সারানো হয়। তাঁদের শুধুই কলের বেহাল দশা তাই নয়৷ এই স্কুলের হোস্টেলে নানান নিম্নমানের খাবার পরিবেশন করা হয়৷ এর পাশাপাশি বৈদ্যুতিন বিভিন্ন সমস্যা তো রয়েছে।

মঙ্গলবার ছাত্রীদের বিভিন্ন সমস্যার প্রতিবাদে স্কুলের প্রধান গেটে তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ দেখাল ছাত্রীরা। প্রায় তিন থেকে চার ঘণ্টা ধরে চলে এই বিক্ষোভ কর্মসূচি। ঘটনায় ছুটে আসেন স্থানীয় এলাকাবাসী সহ গ্রাম পঞ্চায়েতের সদস্যরাও। এলাকার পঞ্চায়েত সদস্যা মামনি দোলোই জানান, ছাত্রীদের এই অভিযোগ সম্পূর্ণভাবে সত্য। ছাত্রীদের অভিযোগ কোনমতেই ভুল নেই‌। দীর্ঘদিন ধরে ওই স্কুলে জলের সমস্যা রয়েছে৷ এমনকি প্রধান শিক্ষিকা স্কুলে নিয়মিত ক্লাস করেননা। এই সমস্যার কথা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে জানানো হয়েছে তবে তারা কোনভাবেই হস্তক্ষেপ করছেন না।

আরও পড়ুন: শুভলগ্না-খুনের তদন্তে নয়া মোড়

স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা মাননীয়া নিবেদিতা ভঞ্জ বলেন, ‘যান্ত্রিক গোলযোগ হতেই পারে। শনিবার কল খারাপের খবর আমি জানতে পেরে স্থানীয় পঞ্চায়েত প্রধানকে জানাই৷ এমনকি ব্লক সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিকেও আমি জানাই৷ তাঁরা আমাকে আশ্বাস দেন সোমবার সকালেই এই কলের সারাইয়ের কাজ হবে। তারপরেই আমি আজ সকালে স্কুলে এসে দেখি এই বিক্ষোভ।”

সবমিলিয়ে মঙ্গলবার গোটা হোস্টেল চত্বর পরিণত হয় রণক্ষেত্রে। দীর্ঘক্ষণ স্কুলের গেটে তালাবদ্ধ থাকায় গেটের বাইরে দাঁড়িয়ে থাকেন প্রধান শিক্ষিকা সহ অন্যন্যারা। পরে স্থানীয় সুতাহাটা থানার পুলিশ ও প্রধান শিক্ষিকার কল সারাইয়ের আশ্বাসে খোলা হয় গেটের তালা। এরপর পরিস্থিত স্বাভাবিক হয়৷

https://youtu.be/rKiIxe2tsUI

----
--