প্রাক্তন প্লাজার গোলেই লিগ জয়ে ধাক্কা খেল ইস্টবেঙ্গল

কলকাতা: হুঙ্কার আগেই দিয়ে রেখেছিলেন। মাঠে নেমে মুখের কথা কাজে ফলালেন। নামি কোচের দামি ডিফেন্সকে দাঁড় করিয়ে রেখে লাল হলুদের জালে গোল উইলিস প্লাজার। দ্বিতীয়ার্ধের ৬৮ মিনিটে লাল হলুদ প্রাক্তনীর গোলেই এগিয়ে যায় চার্চিল।

আরও পড়ুন: প্রথম চারে শেষ করার আশা জিইয়ে রাখল বাগান

১০ মিনিট পর একপর চিত্রনাট্যে মোড় ঘোরানো টুইস্ট। ডিকার ফ্রি কিক থেকে নিখুঁত হেডে চার্চিলের রক্ষণ নাড়িয়ে দেন কাসিম আইদারা। ৭৮মিনিটে এই কামব্যাক ছাড়া অনেক লড়াই করেও এদিন গোলমুখ খুলতে পারেনি ডিকারা। এনরিকে -টনিরা চেষ্টা করলেও বল তেকাঠিতে জড়ায়নি।

- Advertisement -

লিগের লাস্ট ল্যাপে গুরুত্বপূর্ণ সময়ে চার্চিলের কাছে আটকে গিয়ে দু ‘পয়েন্ট হারানোয় লাল-হলুদের আই লিগ জয়ের স্বপ্নভঙ্গ হল কিনা সেটা সময়ই বলবে । তবে চার্চিলের কাছে পিছিয়ে থেকে ড্রয়ে বিজয়রথ থামল ইস্টবেঙ্গলের। পয়েন্ট হারালেও ১৬ ম্যাচ শেষে ৩২ পয়েন্ট নিয়ে লিগের সেকেন্ড বয় জবিরা। হাতে চার ম্যাচকে সম্বল করে আই লিগ জয়ের আসা দেখছেন আলেজান্দ্রো৷

আরও পড়ুন: মেসির স্পটকিক গোলে মানরক্ষা বার্সার

ম্যাচে শুরু থেকেই দাপট চার্চিলের। ৯ মিনিটে প্লাজাকে থামাতে গিয়ে হলুদ কার্ড দেখেন বোরহা। পরের কিছুক্ষণেই প্লাজার পাস থেকে চেষ্টারপলের আক্রমণ। বল জালে রাখতে পারলে ওখানেই এগিয়ে যেতে পারতো গোয়ান ক্লাব। প্রথমার্ধে বেশ কয়েকটা সুযোগ তৈরি করলেও চার্চিল আক্রমণ লাল -হলুদ রক্ষণে এসে বাধা পরে। দ্বিতীয়ার্ধে সেই ডিফেন্সকে সরলরেখার দাঁড় করিয়ে ইস্টবেঙ্গলের জালে বল ঠেলে দিয়ে গোল সেলিব্রেশন প্লাজার। ঠিক সময়ে কাসিম গোল না পেলে ভ্যালেন্টাইন সপ্তাহের শেষে পুরো পয়েন্টই ‘উপহার’ দিয়ে আসতে হতো ইস্টবেঙ্গলকে।ম্যাচ শেষে তাই পিছিয়ে থেকে কামব্যাক করে হার বাঁচানোর কথা শোনালেন ডিকা।