টিকিটের চাহিদা বৃদ্ধির জন্য মুখ্যমন্ত্রীকে কৃতিত্ব দিলেন ইস্টবেঙ্গল কর্তা

কলকাতা: রোদ-বৃষ্টি মাথায় নিয়ে ক্লাবের বাইরে লম্বা লাইন, যুবভারতীর বাইরে টিকিট না পেয়ে রাস্তা অবরোধ৷ দীর্ঘদিন পর ডার্বি ম্যাচ নিয়ে উন্মদনার এই চিত্রই দেখা গিয়েছে শেষ কয়েকদিনে৷অপেক্ষা আর কয়েক ঘন্টার৷ ডার্বি জ্বরে কাঁপছে শহর কলকাতা৷ফ্যানেদের অনেকেই আবার লাইনে দাঁড়িয়ে কিংবা অনলাইনে টিকিট না পেয়ে হতাশায় লম্বা পোস্ট জুড়ছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়৷ এই চিত্রই ময়দান দেখতে চায়৷ বড় ম্যাচ ঘিরে সমর্থকদের এই আবেগকে কুর্ণিশ জানাচ্ছেন ইস্টবেঙ্গল কর্তা দেবব্রত সরকার৷

আরও পড়ুন- ‘অ্যাকোস্টার জন্যই এগিয়ে থাকবে ইস্টবেঙ্গল’

মরশুমের প্রথম ডার্বি ঘিরে টিকিটের চাহিদার এই বৃদ্ধির কারণ হিসেবে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কৃতিত্ব দিলেন লাল-হলুদ কর্তা৷ এদিন তিনি বলেন, ‘তিন ক্লাবেই ফ্লাডলাইট বসেছে৷ বিকেলের আলোয় ফুটবলপ্রেমীরা ম্যাচ দেখার সুযোগ পাচ্ছে৷ফুটবল প্রেমীদের প্রতি মুহূর্তে উৎসাহ দিয়ে চলেছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ ঘরের মাঠে প্রতি ম্যাচেই এখন ফুল হাউস ক্রাউড৷ ডার্বি ম্যাচে টিকিটের চাহিদা অনেকগুণ বেড়ে গিয়েছে৷ যুবভারতীর মতো বড় স্টেডিয়ামে ম্যাচ, তবু সবাইকে ম্যাচ দেখার সুযোগ করে দেওয়া যাচ্ছ না৷টিকিটের চাহিদা এবার বৃদ্ধির কারণেই শেষ দুদিন টিকিট নিয়ে এই হাহাকার৷’ শেষ এক দশকে টিকিটের এমন চাহিদার কথা মনে করতে পারছেন না ইস্টবেঙ্গল কর্তা৷ফুটবলকে ঘিরে এমন উন্মাদনার জন্য রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে ধন্যবাদ দিলেন তিনি৷

- Advertisement -

প্রসঙ্গত আগে এক লক্ষের কিছু বেশি দর্শক যুবভারতীতে বসে খেলা দেখতে পারতেন৷ অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপের জন্য ফুটবল মক্কার এই স্টেডিয়ামের সংস্কার করা হয়৷ বসে বাকেট সিট৷ আসন সংখ্যা তাই এখন কমে দাঁড়িয়েছে ৬৫ হাজার৷

Advertisement
-----