বড় ম্যাচে হারের চাকা ঘোরাতে চান সুভাষ

কলকাতা: মরশুমের প্রথম ডার্বি৷ রাত পোহালেই বাঙালির ফুটবল উৎসব৷ বাঙাল-ঘটি’র চিরপরিচিত আবেগের লড়াই৷মরশুমের প্রথম বড় ম্যাচের আগে নিজেদের অস্ত্রে শান দিয়ে নিল দুই পক্ষ৷ ইস্টবেঙ্গল শিবিরে এদিন দেখা গেল শুটআউটে বিশেষ জোড় দিতে৷ ডিফেন্স নিয়ে পরীক্ষা নিরীক্ষা করে নিলেন বাস্তব-সুভাষ৷ ডার্বিতে ওয়ান স্ট্রাইকার জবিতে ভরসা রেখেই এগোতো দেখা যেতে পারে লাল-হলুদকে৷ অ্যাকোস্টা আসায় রক্ষণে বসতে হতে পারে মেহতাবকে৷ ডার্বিতে ইস্টবেঙ্গল শিবিরে অন্যতম বড় চমক হতে চলেছে কোস্টারিকান স্টপার জনি অ্যাকোস্টা৷

শেষ আট বার ঘরোয়া লিগে চ্যাম্পিয়ন হলেও বড় ম্যাচে সাফল্য নেই ইস্টবেঙ্গলের৷ শেষ ছয় ডার্বিতেই বাগানের কাছে হারাতে হয়েছে ইস্টবেঙ্গলকে৷ ডার্বি হারের এই চাকাটাই ঘুরিয়ে দিতে চান ইস্টবেঙ্গল টিডি সুভাষ ভৌমিক৷ পোড় খাওয়া কোচ এদিন বলেন, ‘শেষ ছয় বার আমরা ডার্বি হেরেছি৷ এই চাকাটাই উল্টো দিকে ঘোরাতে হবে৷ কাজটা সহজ নয়, তবে চাকা ঘোরানো সম্ভব৷আটকে যাওয়া গাড়িটাই কাদা থেকে তুলতে হবে৷’

মরশুমের প্রথম বড় ম্যাচ মূলত বাগানের আক্রমণ বনাম ইস্টবেঙ্গলের ডিফেন্সের লড়াই৷অ্যাকোস্টা বনাম ডিকা-হেনরি, এভাবেই দেখা হচ্ছে বড় ম্যাচকে৷ মদয়ানের পোড় খাওয়া কোচ অবশ্য জনিকে নিয়ে বাড়তি উৎসাহ দেখাতে চান না৷ প্রস্তুতি শেষে এদিন তিনি বলেন, ‘বড় ম্যাচে অভিষেক করছে জনি৷ সেটা ইস্টবেঙ্গলের যেমন সুবিধের ঠিক তেমনি চিন্তারও৷একটাও ম্যাচ না খেলে ডার্বিতে নামাটা বুমেরাংও হতে পারে৷’

আরও পড়ুন- ‘অ্যাকোস্টার জন্যই এগিয়ে থাকবে ইস্টবেঙ্গল’

সেই সঙ্গে পার্থক্য গড়ে দিতে পারে দুই দলের মাঝমাঠ৷ইস্টবেঙ্গলের কাসিম-আমনা জুটির শক্তিকেই এগিয়ে রাখছেন অনেকে৷ তুলনায় বাগানের মাঝমাঠ লিগে সেভাবে নজর কাড়তে পারেনি৷ প্রতিপক্ষকে সমীহ করে ইস্টবেঙ্গেল টিডি অবশ্য বাগানের মাঝমাঠ, আক্রমণ দুটোকেই ধারালো বলছেন৷ বিশেষ করে আক্রমণই মোহনবাগানের বড় শক্তি বলে মত সুভাষের৷ প্রস্তুতি শেষে এদিন ফুটবলারদের সঙ্গে আলাদা করে কথা বললেন শীর্ষকর্তা দেবব্রত সরকার৷

লিগে দুই দলই সাতটি করে ম্যাচ খেলেছে৷পয়েন্টের বিচারে দুই দলই ১৯ পয়েন্ট নিয়ে ডার্বিতে নামছে মোহন-ইস্ট৷ গোলপার্থক্যে অবশ্য এগিয়ে থেকে পয়েন্ট টেবিলে শীর্ষস্থানে রয়েছে মোহনবাগান৷

Advertisement
----
-----