পথ দুর্ঘটনায় মৃত্যু আশিয়ানজয়ী ইস্টবেঙ্গল তারকার

কলকাতা: ভয়াভয় পথ দূর্ঘটনা অকালেই প্রাণ কাড়ল প্রাক্তন ইস্টবেঙ্গল ফুটবলার কুলোথুঙ্গানের৷ শনিবার সকালে বাইক দূর্ঘটনায় প্রাণ হারান লাল-হলুদ শিবিরের আশিয়ান কাপজয়ী মিডফিল্ডার৷ ইস্টবেঙ্গলের জাতীয় লিগ ও ফেডারেশন কাপজয়ী দলেরও সদস্য ছিলেন তিনি৷

আরও পড়ুন: বার্সেলোনার বিরুদ্ধে ম্যাচ খেলবে সুনীলরা

থাঞ্জাভুরে নিজের বাসভবনের অদূরেই দূর্ঘটনার কবলে পড়েন কুলোথুঙ্গান৷ মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৪১ বছর৷ কুলোথুঙ্গানের মূত্যুর খবরে শোকের ছায়া নেমে আসে বাংলা তথা ভারতের ফুটবলমহলে৷

- Advertisement -

আরও পড়ুন: ফুটবল দাঙ্গায় আহত সমর্থকের পাশে ইস্ট-মোহন

কলকাতা ময়দানের সঙ্গে কুলুথাঙ্গনের সম্পর্ক দীর্ঘদিনের৷ শুধু ইস্টবেঙ্গলেই নয়, একটি মরশুম সবুজ-মেরুন জার্সিতেও কাটিয়েছেন এই তামিল ফুটবলার৷ খেলেছেন মহামেডান ও ভবানীপুরেও৷ ভাবনীপুরেই নিজের ফুটবলার জীবনে ইতি টানেন কুলোথুঙ্গান৷

ইস্টবেঙ্গল কোচ সুভাষ ভৌমিকের অত্যন্ত প্রিয়পাত্র ছিলেন কুলোথুঙ্গান৷ লাল-হলুদের পর পর দু’বার (২০০২-০৩ ও ২০০৩-০৪) জাতীয় লিগ জয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছিলেন তিনি৷ ২০০২ থেকে ২০০৭ পর্যন্ত ইস্টবেঙ্গল ও মহামেডানের জার্সিতে ময়দানে দাপিয়ে বেড়িয়েছেন তারকা এই মিডফিল্ডার৷

আরও পড়ুন: কলকাতা লিগের শুরুতে নেই হাইভোল্টেজ ম্যাচ

পরে তিনি যোগ দেন মুম্বই এফসিতে৷ ২০০৯ সালে আবার ফিরে আসেন কলকাতায়৷ এক বছর মোহনবাগানে খেলার পর কলকাতা ছেড়ে ভিভা কেরলের জার্সি গায়ে তোলেন কুলোথুঙ্গান৷ ২০১২ সালে ভবানীপুরের হয়ে খেলার জন্য পুনরায় কলকাতায় ফেরেন৷ সেখান থেকেই পেশাদার ফুটবল কেরিয়ারে দাঁড়ি টানেন তিনি৷

কুলোথুঙ্গানের সিনিয়র ফুটবল কেরিয়ার:

২০০২-২০০৫: ইস্টবেঙ্গল

২০০৫-২০০৭: মহামেডান

২০০৭-২০০৯: মুম্বই এফসি

২০০৯-২০১০: মোহনবাগান

২০১০-২০১২: ভিভা কেরল

২০১২-শেষ পর্যন্ত: ভবানীপুর

Advertisement ---
-----