ফের ইডির দফতরে মেয়রের শ্যালক

স্টাফ রিপোর্টার,কলকাতা: নারদাকাণ্ডে ফের নড়েচড়ে বসলো ইডি(এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট)৷ কলকাতা পুরসভার মেয়র শোভন চট্রোপাধ্যায়-এর শ্যালক শুভাশিস দাসকে সিজিও কমপ্লেক্সে হাজিরার নির্দেশ দিয়েছিল ইডি ৷ মঙ্গলবার দুপুরে শুভাশিস দাস বেশ কিছু নথিপত্র নিয়ে হাজির হন সল্টলেকের ইডি-র দফতরে৷ নথিপত্র জমা দিয়ে তিনি কিছুক্ষন পর বেরিয়ে যান৷ এর আগেও তাঁকে ইডি-র দফতরে ডেকে জিঞ্জাসাবাদ করা হয়েছে৷

২০১৭ সালে মেয়র শোভন চট্রোপাধ্যায় এবং মেয়র পত্নী রত্না চট্টোপাধ্যায়কেও ইডি দফতরে ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে৷ এছাড়া মেয়রের সহযোগী দিলিপ সাহাকেও সেসময় জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়৷ অভিযোগ নারদা-কর্তা ম্যাথু স্যামুয়েলের থেকে পাঁচ লক্ষ টাকা ঘুষ নিয়েছিল মেয়র শোভন চট্রোপাধ্যায়৷ যদিও মেয়র তা অস্বীকার করে ইডির তদন্তকারী আধিকারিকদের জানিয়েছেন,ম্যাথু স্যামুয়েল কে তিনি চেনেন না৷

- Advertisement -

নারদা-কাণ্ডে যেসব হেভিওয়েটদের নাম জড়িয়েছে-

১. এম এইচ আহমেদ মিরজা (বরিষ্ঠ পুলিশ আধিকারিক),
২. মুকুল রায়, বিজেপি নেতা
৩. সুব্রত মুখোপাধ্যায় (পঞ্চায়েত মন্ত্রী)
৪. সুলতান আহমেদ (প্রয়াত সাংসদ)
৫. সৌগত রায় (সাংসদ)
৬. শুভেন্দু অধিকারী (তৎকালীন সাংসদ, বর্তমান পরিবহন মন্ত্রী)
৭. কাকলি ঘোষদস্তিদার (সাংসদ)
৮. প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায় (সাংসদ)
৯. শোভন চট্টোপাধ্যায় (কলকাতার মেয়র)
১০. মদন মিত্র (তৎকালীন ক্রীড়া ও পরিবহন মন্ত্রী)
১১. ইকবাল আহমেদ (বিধায়ক)
১২. ফিরহাদ হাকিম (পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী)

এছাড়া আরও অনেকের নাম জড়িয়েছে নারদা-কাণ্ডে৷ এখন সিবিআই ও ইডি উভয়ই নারদা-কাণ্ডের তদন্ত করছে৷ এই মামলার জাল দ্রুত গোটাতে চাইছে সিবিআই৷ কিছুদিন আগে সিবিআইয়ের স্পেশাল ডিরেক্টর রাকেশ আস্থানা কলকাতা সফরে এসে নারদা তদন্তের তদন্তকারী অফিসারদের তিরষ্কার করে গিয়েছেন৷ তদন্তকারী অফিসারদের বলেন, প্রয়োজনে ফের জিজ্ঞাসাবাদ করতে হবে নারদা-কাণ্ডে যাদের নাম রয়েছে৷ এর পরই নড়েচড়ে বসে এ রাজ্যের সিবিআই ও ইডির তদন্তকারী অফিসাররা৷

Advertisement
---