ভরতি নিয়ে ‘তোলাবাজি’ রুখতে মুখ্যমন্ত্রীর পর কলেজ পরিদর্শন শিক্ষামন্ত্রীর

ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: আচমকা পরিদর্শন করতে সোমবার আশুতোষ কলেজে পৌঁছে যান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তার পরই শহরের একাধিক কলেজে পৌঁছে যান শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়৷ প্রথম শেঠ আনন্দরাম জয়পুরিয়া কলেজ, তারপর মহারাজা মণীন্দ্র চন্দ্র কলেজ ও সবশেষে তিনি যান সুরেন্দ্রনাথ কলেজে৷ এই তিনটি কলেজে গিয়ে তিনি ভর্তি সংক্রান্ত বিষয়গুলির সম্বন্ধে খবরাখবর নেন৷

রবিবার টাকা নিয়ে ভর্তি করিয়ে দেওয়ার অভিযোগে জয়পুরিয়া কলেজের একজন প্রাক্তণ ছাত্রকে গ্রেফতার করে পুলিশ৷ অভিযুক্ত ছাত্রের নাম তিতান সাহা (২৭)৷ সোমবার তাই কলেজ পরিদর্শনে বেড়িয়ে প্রথমেই জয়পুরিয়া কলেজে এসে হাজির হন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়৷ সেখানে গিয়ে কলেজে ভরতি হতে আসা পড়ুয়া ও অভিভাবকদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি৷ তারপর কলেজের অধ্যক্ষ ডঃ অশোক মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠক করে ভরতি সংক্রান্ত বিষয়ে আলোচনা করেন শিক্ষামন্ত্রী৷ এমনকী, জয়পুরিয়া কলেজে ভরতির লাইনে দাঁড়িয়ে খবরাখবরও নেন তিনি৷

জয়পুরিয়া কলেজ থেকে বের হয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, “জয়পুরিয়া কলেজে যে পদ্ধতিতে পড়ুয়াদের ভরতি করা হয় সেখানে টাকা নেওয়ার কোনও সুযোগ নেই। কারণ, এখানে ব্যাঙ্কে টাকা জমা দিতে হয়। তবুও, বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।টাকা নেওয়া হয়েছে বলে আমার অবশ্য মনে হয় না। অভিযোগ করা হলে গ্রেফতার হবেই। তবে অভিযোগের সত্যতা আছে কি না তা খতিয়ে দেখতে হবে।” তবে, অভিযোগ পেলে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়ারও আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।

- Advertisement -

জয়পুরিয়া কলেজের পর তিনি রওনা দেন মহারাজা মণীন্দ্র চন্দ্র কলেজে৷ গত শুক্রবার টাকা নিয়ে ভরতির অভিযোগে এই কলেজের দুই ছাত্রকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ৷ এই দু’টি কলেজ পরিদর্শনের পর পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘‘ভরতি প্রক্রিয়ায় ছাত্র সংসদের প্রতিনিধি বা বহিরাগত কেউই থাকতে পারবে না৷ কেউ যদি তোলাবাজির দায়ে ধরা পড়েন, তাহলে তার বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে৷’’ এদিন দু’টি কলেজের মেধাতালিকাও খতিয়ে দেখে এই তালিকা উচ্চ শিক্ষা দফতরে জমা দেওয়ার নির্দেশ দেন শিক্ষামন্ত্রী৷

মণীন্দ্র কলেজ পরিদর্শনের পর সুরেন্দ্রনাথ কলেজে পৌঁছে যান শিক্ষামন্ত্রী৷ সোমবার টাকা নিয়ে ভরতির অভিযোগে জয়পুরিয়া কলেজের প্রাক্তণ ছাত্রের সঙ্গে এই কলেজের একজন অশিক্ষক কর্মচারি রাতুল ঘোষকেও গ্রেফতার করেছে পুলিশ৷ এদিন সুরেন্দ্রনাথ কলেজে গিয়ে সেই বিষয়ে খোঁজখবর করেন শিক্ষামন্ত্রী৷ এ ছাড়া, কলেজের ভরতি সংক্রান্ত বিষয়েও খোঁজ নেন তিনি৷

এদিন কলেজ পরিদর্শনের সময় পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে কেন্দ্রীয়ভাবে ভরতি ব্যবস্থার চালুর বিষয়ে প্রশ্ন করা হয়৷ উত্তরে তিনি বলেন, ‘‘কেন্দ্রীয়ভাবে এখনই অনলাইনের মাধ্যমে কলেজে ভরতি প্রক্রিয়া শুরু করা যাবে না৷ এখনও রাজ্যের সর্বত্র তেমন পরিকাঠামো গড়ে ওঠেনি৷’’ অন্যদিকে, এদিনই ভরতি হতে এসে ফিরে তোলাবাজদের খপ্পরে পড়ে ফিরে যেতে হয় আসানসোলের এক ছাত্রীকে৷ সুরেন্দ্রনাথ কলেজ পরিদর্শনের পর শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘‘ভরতি প্রক্রিয়ার একটা অঙ্গ হল সার্টিফিকেটের যাচাই৷ সেটা কলেজে কলেজে ক্লাস শুরু হয়ে যাওয়ার পরও করা যেতে পারে৷ তখনই যাচাই হয়ে যাবে পড়ুয়াদের সব নথিপত্র সঠিক রয়েছে কি না৷ নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে কলেজ কর্তৃপক্ষ এই কাজ করবে৷’’

সোমবার শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে নিজের বাড়িতে তলব করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ আধ ঘন্টার এই বৈঠকে শিক্ষামন্ত্রীর কাছে ভরতি দুর্নীতি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি৷ এ ছাড়া, কলেজগুলিতে আচমকা গিয়ে ভরতি সম্পর্কে খোঁজ নেওয়ার কথাও বলেন তিনি৷ তাঁর কথা শুনে বৈঠক শেষেই জয়পুরিয়া কলেজের উদ্দেশ্য রওনা দেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়৷ অন্যদিকে, এদিন নবান্ন যাওয়ার পথে বেলা সাড়ে ১২টা নাগাদ আচমকা আশুতোষ কলেজে পরিদর্শনে যান এই কলেজেরই প্রাক্তনী মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ভরতি দুর্নীতি নিয়ে কঠোর বার্তা দিতে এদিন তৃণমূল ভবনে কলেজগুলির ছাত্র সংসদের প্রতিনিধিদের নিয়েও বৈঠক করেন তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সভানেত্রী জয়া দত্ত৷

Advertisement ---
-----