পরতে পরতে খুলতে শুরু করেছে সৃজিতের ‘রাজা’র অজানা গল্প

কলকাতা: কীভাবে চিতা থেকে সন্ন্যাসীদের ডেরায় গিয়ে পৌঁছল রাজা৷ আবার সেই জায়গা থেকে ফিরলেনই বা কীকরে? সেই নিয়েই তৈরি হয়েছে সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের ‘এক যে ছিল রাজা’৷ যা একেবারে মুক্তির দিনের দোরগোড়ায়৷ তার আগেই মুক্তি পেল ছবির নতুন গান ‘কে আমি কোথায়’৷ সেই গানেই টুকরো টুকরো করে সাজানো হয়েছে এক অন্য গল্প৷ রাজার জীবনের অজানা কিছু কথা৷ তার একাকিত্বের কিছু মূহূর্তই ধরা পড়েছে এই গানে৷ গানটি গেয়েছেন অরিজিৎ সিং৷

সৃজিতের ‘এক যে ছিল রাজা’ ভাওয়াল রাজত্বের কথা বলবে। বলবে এক নারী আসক্ত রাজার সন্ন্যাসী হয়ে ওঠার কাহিনি। এই পর্যন্ত আমরা সকলে জানি। এমনকি পরিচালক নিজেও জানিয়েছেন তাঁর এই ছবি পুরোপুরি ঐতিহাসিক ভিত্তিক।

যদিও ক্যামেরার লেন্স পার হতে গিয়ে লেগেছে কিছুটা রং। যেমন এসেছে নারীবাদ ও স্বাধিনতা সংগ্রামের কাহিনি। কিন্তু এসব ছাড়াও রয়েছে আরও এক গল্প। না সৃজিতের তৈরি করা নয়! ইতিহাসের পাতাতেই ছিল এই কাহিনি। শুধু ছিল আড়ালে। ভাই বোনের ভালবাসার গল্প। যেখানে একদিকে যেমন রয়েছে ভাওয়াল রাজ ও তাঁর বোন। তেমনি অন্যদিকে বিভাবতি দেবী ও তাঁর ভাইয়ের গল্প।

রাজার সঙ্গে তাঁর মেজ বোনের সম্পর্ক ছিল নিবিড়। তাই দাদার মৃত্যুর খবর পেয়েও কোনওদিন সে বিশ্বাস করেনি সে কথা। বিভিন্ন জায়গায় খুঁজে ফিরেছে দাদাকে। আর অপেক্ষা করেছে তার ফিরে আসার। তাই সন্ন্যাসীকে ভাওয়াল রাজা প্রমাণ করতে জান-প্রাণ এক করে দিয়েছিল সে। তেমনি নিজের বোন বিভাবতির জন্য কি করেননি তার ভাই! ভাওয়াল সন্ন্যাসীর পাশাপাশি ভাই-বোনের এই ভালবাসার কথা বলবে সৃজিত।

ছবিতে মুখ্য ভূমিকায় রয়েছেন যীশু সেনগুপ্ত, জয়া এহসান, রাজনন্দিনী, অপর্ণা সেন, অঞ্জন দত্ত। ছবির ট্রেলার, টিজার, পোস্টার সাড়া ফেলে দিয়েছে টলিপাড়ায়। এবার কেবল ১২ অক্টোবরের অপেক্ষায়৷

ট্রেলারের প্রথমেই দেখা গিয়েছে, আদালতের চার দেওয়াল গমগম করছে আইনজীবীর চিৎকারে৷ বিচারকের অনুমতি নিয়ে কাঠগড়ায় এক মৃতদেহকে ডাকতে চাইছেন তিনি৷ সেই মৃতদেহের পরিচয় রাজা মহেন্দ্রকুমার চৌধুরি৷ যদিও সে জীবন্ত৷ হাঁটাচলা করে বেড়াচ্ছেন৷ নিজে থেকেই উঠে এসে কাঠগড়ায় দাঁড়ালেন তিনি৷ কেন এই জীবন্ত ব্যক্তিকে মৃতদেহ বলা হচ্ছে সেই জটও ধীরে ধীরে খুলবে৷

----
-----