বিশ্বেররেকর্ড গড়তে পারে পঁচিশের ২১শে জুলাই

সৌপ্তিক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: আরও একটা ২১শে জুলাই, আরও একবার বিশাল জনসমাগম দেখবে মহানগরী। পাহাড় থেকে সমতল প্রত্যেকটি জেলা থেকে লক্ষ লক্ষ মানুষ এসে জমায়েত করবেন ধর্মতলা চত্বরে। ইতিহাস ঘাঁটলে দেখা যাবে ২১ জুলাইয়ের জনসভার জনসমাগম বিশ্বের বৃহত্তম রাজনৈতিক জনসমাগমগুলির মধ্যে এক থেকে দশের মধ্যে থাকবে।

এই ২১ শে জুলাই এর ১৩ জন শহীদের রক্তে পিচ্ছিল পথ বেয়ে আজকের তৃণমুল কংগ্রেসের এই বৈভব। এত প্রাণপ্রাচুর্য্য। প্রথম শ্রেণী থেকে ইংরেজি তুলে দেওয়া, নিরপেক্ষ প্রশাসন, সারা বাংলা জুড়ে বাম সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ এবং ভোটার আইডেন্টিটি কার্ড ভোটদানের ক্ষেত্রে আবশ্যিক করার দাবিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে যুব কংগ্রেসের ব্যানারে ‘মহাকরণ অবরোধ’ কর্মসূচী ঘোষনা হয়।

আরও পড়ুন: একুশে রুদ্ধ মহানগরী, সময় নিয়ে বেরোন রাস্তায়

২৫ বছর আগে এই দিনে কয়েক লক্ষ মানুষকে কলকাতার রাজপথে পা মেলাতে দেখেছিল সারা বাংলা। তৎকালীন বাম সরকারের মিছিল ঠেকানোর জন্য প্রস্তুতির অভাব ছিলো না। তবে জন প্লাবন রুখতে পারেনি বাম সরকারের প্রশাসন। মহাকরণকে মাঝখানে রেখে পাঁচটি রাস্তা ধরে পিল পিল করে জনস্রোত ধেয়ে এসেছিল অবর্ননীয় অত্যাচারের জীবন্ত প্রতীক সেই লালবাড়িটির দিকে।

তারপরের ঘটনা শুধুই ইতিহাস। নির্মম ভয়ংকর রক্তাক্ত বাস্তব। যা বাংলার ইতিহাসে বিরলতম বলা যেতে পারে। রাজনৈতিক আন্দোলনে সামিল হয়ে এতজন রাজনৈতিক কর্মীর মৃত্যু বরণ একসাথে একদিনে তাও আবার প্রশাসনের হাতে শুধু বাংলার নয় ভারতবর্ষের ইতিহাসে বিরলতম ঘটনা। সেই ঘটনার পর থেকে ২৫ বছর কেটেছে। ২১ জুলাইয়ের মাহাত্ম্য বেড়েছে। ২০১১ সালে তৃণমূল সরকার ক্ষমতায় আসার পর মিছিলের রমরমা আরও বেড়েছে। ২০১৭-র রেকর্ড বলছে ২১শে জুলাই ১০ লক্ষ মানুষ জমা হয়েছিলেন কলকাতায়।

আরও পড়ুন: আকাশে জুড়ে ১৩ শহিদের আলোকগাথা

একবার দেখে নেওয়া যাক বিশ্বের সবথেকে বেশি জনসমাগম হওয়া রাজনৈতিক মিছিল বা সভাগুলি। ১৯৩০-এর গান্ধীজীর নেতৃত্বে ডান্ডি অভিযান। সেখানে ৬০ হাজার মানুষ অংশগ্রহণ করেছিলেন। ১৯৮৬ সালে বেনজির ভুট্টো পাকিস্তানে ফিরে আসার দিন পিপলস পার্টি অফ পাকিস্তান ৩০ লক্ষ সমর্থক হাজির হয়েছিলেন নেত্রীকে স্বাগত জানাতে। ১৯৮৯ সালে চিনের তাইনেনমিনে ছাত্র আন্দোলন হয়। এক সপ্তাহব্যাপি অবস্থান বিক্ষোভ দেখিয়েছিলেন ১০ লক্ষ পড়ুয়া। ২০১০ সালের ১৬ ডিসেম্বর পৃথক তেলেঙ্গানা আন্দোলনের উদ্দেশ্যে ১২ লক্ষ মানুষ হাজির হয়েছিলেন অন্ধ্রপ্রদেশের ওয়ারাঙ্গলে।

আরও পড়ুন: রাজনীতিতে রাহুল রসিকতা ফেরালেন বলেই মত বঙ্গ কংগ্রেস নেতাদের

হিসাব স্পষ্ট বলে দিচ্ছে ২১ জুলাইয়ের জনসমাগম রেকর্ড জন্সমাগমের তালিকায় প্রথম দশের মধ্যেই থাকবে।
২৫তম ২১ জুলাইয়ে জনসমাগম ১০ লক্ষ ছাড়িয়ে গেলেও অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না।

Advertisement
----
-----