ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, মেদিনীপুর: প্রচার এবার যে শেষ করতে হবে। হাতে যে একেবারে সময় নেই। সোমবার ভোট। তার আটচল্লিশ ঘণ্টা আগে শেষ প্রচার। সেই অনুযায়ী শনিবারই প্রচারের শেষ দিন। বিকেল পাঁচটার মধ্যে প্রচার শেষ করতে হবে। এদিকে বৃহস্পতিবার অবধি তো কোর্টের দিকে তাকিয়ে বসে কেটে গেল। তাই শেষ বেলার প্রচারে পাগলের মতো ছুটে বেড়াচ্ছে সবদলের প্রার্থী, কর্মীরা।

Advertisement

মেদিনীপুরে তো সূর্য ওঠার আগে দলীয় পতাকা হাতে নেমে পড়েছে রাজনৈতিক দলের কর্মী সদস্যরা। মিটিং, মিছিল, দলীয় পতাকা টাঙানো, ফেস্টুন সবই রয়েছে প্রচারের অঙ্গ হিসাবে। নাওয়া–খাওয়া ভুলেছে সব। কেউ কেউ বলছেন, এইটুকুই তে করার। আর তো সোমবার অবধি আদা জল খেয়ে লড়াই। তারপর তো তেমন বিশেষ চাপ নেই।

আরও পড়ুন: বাংলার মানুষ ১৭ মে বিরোধীদের মুখে কালি মাখাবে

শুক্রবার সদরব্লকের মুচিবেড়া, নয়াগ্রাম, ভাদুলিয়া, গুড়গুড়িপাল এলাকায় স্লোগানে স্লোগানে কাঁপছে আকাশ, বাতাস। সকাল সকালই মিছিল, মিটিং, পথসভা সেরেছে তৃণমূল। পঞ্চায়েতের তিনস্তরের প্রার্থীদের হয়েই প্রচার চলেছে জেলা ও ব্লকস্তরে। অঞ্জন বেরা, আলি আকবর খান, সুসময় মুখোপাধ্যায়ের মতো দলীয় নেতারা হাজির ছিলেন সেখানে।

অন্যদিকে সময় হাতছাড়া করতে নারাজ বিরোধীরাও। বিজেপি প্রচার চালিয়েছে জোর কদমে। খড়গপুর কলাইকুণ্ডা চার নম্বর অঞ্চলে নির্বাচনী প্রচারসভা হয়। ছিলেন পঞ্চায়েত প্রার্থী, পঞ্চায়েত সমিতির প্রার্থী, জেলা পরিষদ প্রার্থী। পথসভাও হয় বিজেপির তরফে।

আরও পড়ুন: ভোট দিতে বিয়েবাড়ি যেতে হবে এই গ্রামের ভোটারদের

বিজেপি পাকসু মোর্চার জেলা সভাপতি শঙ্কর দাস দুর্নীতিমুক্ত পঞ্চায়েত গড়ার লড়ার ডাক দেন। বিজেপির হাত ধরেই তা সম্ভব বলে দাবি তাঁর।

----
--