শিমলা : বহুদিন ধরেই অধরা ছিল৷ তবে উপস্থিতি জানান দিচ্ছিল বারবার৷ সেই স্নো লেপার্ড ধরা পড়ল ক্যামেরায়৷ সমুদ্র পৃষ্ঠ থেকে প্রায় ৪০০০ মিটার ওপরে অবস্থিত লিপ্পা আসরা ওয়াইল্ড লাইফ ডিপার্টমেন্ট৷ হিমাচল প্রদেশের কিন্নরের মূল আকর্ষণ এটি৷

এই জঙ্গলটিতে বনদফতরের পক্ষ থেকে ক্যামেরা বসানো হয়েছে৷ সেই ক্যামেরাতেই ধরা পড়েছে স্নো লেপার্ডটি৷ চলতি বছরের মে মাসে ক্যামেরা বসানো হয় প্রাণীদের গতিবিধিতে নজরদারির জন্য৷ আটটি নির্দিষ্ট এলাকাভিত্তিক উচ্চ রেঞ্জের ক্যামেরা বসানো হয়েছে বলে বনদফতর সূত্রে খবর৷ কাজের সুবিধার জন্য আরও ক্যামেরা বসানো হবে বলে খবর৷

গত বছর থেকেএই স্নো লেপার্ডটির খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছিল বনদফতর৷ তবে হদিশ মিলছিল না এই প্রাণীটির৷
প্রায় নিখোঁজ স্নো লেপার্ডের জন্য জারি করা হয়েছিল সতর্কতাও৷ বিপন্ন প্রজাতির বলে প্রথমে চিহ্নিত করা হলেও, পরে একে সংরক্ষণের আওতাভুক্ত করা হয়৷ দেখা যায় নিজের বিচরণ ক্ষেত্র ক্রমশ বদলাচ্ছে এই প্রাণীটি৷ খাবারে খোঁজেই তাকার জায়গার বদল বলে প্রাথমিক ভাবে মনে করে বনদফতর৷

পড়ুন: এই মন্দিরে শ্রীকৃষ্ণের দিকে বেশিক্ষণ তাকালে হিপনোটাইজড হতে পারেন

জঙ্গলে কাঠের খোঁজে যাওয়া গ্রামবাসীদের অনেকেই এই স্নো লেপার্ডটিকে দেখতে পেয়েছে৷ গ্রামবাসীদের কথার সূত্র ধরেই ক্যামেরা বসানোর সিদ্ধান্ত নেয় বন দফতর৷ সঙ্গে সঙ্গে জারি করা হয় সতর্কতা৷ ডিভিশনাল ফরেস্ট অফিসার কুণাল অংগরিশ জানান ক্যামেরা বসিয়েই সাফল্য মেলে৷ খোঁজ মেলে গ্রামবাসীদের বর্ণনায় থাকা স্নো লেপার্ডের৷

৩২০০ ফুট উচ্চতায় বসানো একটি ক্যামেরাতেই এই প্রাণীর ছবি ধরা পড়েছে৷ ফলে মনে করা হচ্ছে এই উচ্চতাতেই ঘোরা ফেরা করছে স্নো লেপার্ড৷ নজরদারি বাড়ানো হয়েছে বন দফতরের পক্ষ থেকে৷

----
--