‘ইট’স কামিং হোম’ গানে মাতোয়ারা ইংল্যান্ড

সামারা: ১৯৬৬ ফুটবল বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ইংল্যান্ড৷ সেই বিশ্বকাপ টুর্নামেন্টে মোট ১১টি গোল করেছিল ববি মুরব্রিগেড৷ শনিবার সামারা এরিনাতে সুইডেনকে ২-০ গোলে হারিয়ে সেমিফাইনালে উঠেছে হ্যারি কেনের নেতৃত্বাধীন ইংল্যান্ড৷ এবার সেমিফাইনালে ওঠার মধ্যেই ১১ গোল করেছে গ্যারেথ সাউথগেটের দল৷

বিশ্বকাপে এ নিয়ে দ্বিতীয়বার এক টুর্নামেন্টে ১০টির বেশি গোল করল ইংরেজরা৷ ১৯৬৬ সালে বিশ্বকাপ জিতেছিল ব্রিটিশরা৷ ১১টি গোল করে সেই ১৯৬৬ সালের স্মৃতিই কি ফেরাতে পারবেন হ্যারি কেনরা?

পুতিনের দেশ থেকে বিশ্বকাপ নিয়ে কারা ফেরেন তার ফলাফলের জন্য অবশ্য অপেক্ষা করতে রাজী নন ব্রিটিশ ফুটবল ফ্যানরা৷ তারা ইতিমধ্যেই ‘ইট’স কামিং হোম’ গানের সঙ্গে কোমর দোলাতে শুরু করেছেন৷ ভাবখানা কিছুটা যেন এরকম, ‘আমরাই জিতছি এবারের বিশ্বকাপ’৷ তবে ব্রিটিশদের দোষ দিয়ে লাভ নেই, কেনব্রিগেডের এই ইয়ং ব্রিটিশ ফুটবল যোদ্ধাদের ফেভারিট বাছছেন অনেক প্রাক্তন ফুটবলারই৷

বিশ্বকাপ শুরু হওয়ার সময়ই পুতিনের দেশে বিশ্বকাপের যোগ্য দাবীদারদের তালিকায় ইংল্যান্ডকে প্রথমের দিকে রেখেছিলেন ভারতের প্রাক্তন ফুটবল অধিনায়ক প্রসূন বন্দোপাধ্যায়৷ প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক এক সাক্ষাতকারে কলকাতা২৪x৭-কে জানিয়েছিলেন, ‘দেখো ২০১৭ সালে আমাদের দেশ থেকে অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপ জিতে নিয়ে গিয়েছে ইংল্যান্ড৷ দলটা যেন ফুটবলে নিজেদের পুরনো ছন্দ খুঁজে পেয়েছে৷ তাই এবারের বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডকেও আমি চ্যাম্পিয়ন হওয়ার যোগ্য দাবীদার মনে করছি৷’

রাশিয়া বিশ্বকাপের শুরুর ম্যাচ থেকে হ্যারি কেনদের পারফরম্যান্স দেখলে কিন্তু বলা যায় অনেক বছর এরকম ছন্দের ফুটবল খেলেননি ব্রিটিশরা৷ হ্যারি কেন ঝড়ে বিশ্বকাপ উড়ে গিয়ে ইংল্যান্ডে পড়ুক এটাই চাইছেন টেমস পাড়ের বাসিন্দারা৷

----
-----