স্বাস্থ্যই সম্পদ। একথা সবাই জানে। তাই সু স্বাস্থের জন্য শরীরের গঠন ঠিক রাখতে হবে। যারা জিমে যেতে পছন্দ করেন না বা যারা জিমে যাওয়ার সময় পান না তাঁদের জন্য রইল কিছু যোগা বা ব্যায়াম। আজ মোট পাঁচটি ব্যায়াম দেওয়া হল। চলুন ব্যায়াম গুলো দেখে আজ থেকেই অভ্যাস করুন-

দ্য হ্যাপি বেবি পোজ –
প্রথমে মেঝেতে শুয়ে পরুন। এরপর দুটো পা আসতে আসতে সামনের দিকে তুলুন। পা দুটো অর্ধেক ভাজ অবস্থায় তুলে যতটা সম্ভব প্রসারিত করুন। এরপর হাত দিয়ে পায়ের গোড়ালি দুটো ধরে, পা দুটিকে নিচের দিকে নামানোর চেষ্টা করুন।এমন অবস্থায় কোনও ভাবে ঘাড় মাথা তুলবেন না। শ্বাসপ্রশ্বাস স্বাভাবিক রাখুন।

দ্য কোবরা- এই পোজটা একদম সোজা। মেঝেতে উল্টো পিঠে শুয়ে পরুন। এরপর, ধীরে ধীরে সামনের দিকে তাকিয়ে ঘাড় মাথা সহ বুকের দিকটা উপরে তুলতে থাকুন,অবশ্যই দুই হাতে সামনের দিকে ভর রাখবেন শরীরের। অনেকটা এল শেপের মতো দেখাবে। শ্বাসপ্রশ্বাস স্বাভাবিক রাখবেন।

দ্য গডেস পোজ-
সকালে এই ধরনের ব্যায়াম করা যেতে পারে। প্রথমে সোজাসুজি দাড়িয়ে পরুন। এরপর পা দু’টিকে দেড় থেকে দু’ফুটের মতো প্রসারিত করতে হবে। শুধু তাই নয়। পায়ের প্রসারণ সোজাসুজি থাকবে না।এমন ভাবে দাড়াতে হবে যেন দেখে মনে হবে আপনি চেয়ারে বসে আছেন। পিঠ ঘাড় মাথা সোজা থাকবে। হাত সামনের দিকে প্রনামের স্টাইলে থাকবে। শ্বাসপ্রশ্বাস স্বাভাবিক থাকবে।

দ্য ক্রেজি অ্যাডভান্সড যোগা পোজ-
এই ব্যায়াম অনেকটা ব্যাঙের মতো। প্রথমেই পা দুটোকে ভাজ করে হাফ বস্তে হবে।এরপর হাত দুটো দুই পায়ের ফাঁক দিয়ে বের করে মেঝেতে রাখতে হবে।এইভাবে কিছুক্ষণ থাকতে হবে। শ্বাসপ্রশ্বাস থাকবে স্বাভাবিক।

দ্য বোট পোজ-
অনেকটা ভি শেপের মতো করে শরীরকে রাখতে হবে। মেঝেতে সোজা হয়ে বসে পা সোজা অবস্থায় ৪৫ ডিগ্রি অ্যাঙ্গেলে তুলতে হবে।হাত দুটোকে সোজাসুজি রাখতে হবে, হাঁটুর পাশে। শরীরের উপরের অংশও পিছনের দিকে কিছুটা হেলে থাকবে। এভাবে কিছুক্ষণ থাকতে হবে। শ্বাসপ্রশ্বাস স্বাভাবিক থাকবে।

----
--