ছবি ফাঁস! পার্টি অফিসেই মদের আসর তৃণমূল নেতাদের

প্রতীকী ছবি

স্টাফ রিপোর্টার,বাঁকুড়া: তৃণমূলের দলীয় কার্যালয়ে মদের আসর বসানোর অভিযোগ উঠল তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে৷ সেই অভিযোগের ভিত্তিতে পালটা অভিযোগ করে এলাকার আরেক তৃণমূল নেতা৷ ঘটনাটিকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়াল বাঁকুড়ার ওন্দার রামসাগরে৷

স্থানীয় তৃণমূল নেতা শান্তিনাথ মুখার্জীর অভিযোগ, এলাকার দাপুটে তৃণমূল নেতা প্রদীপ দাসের জামাই সোমনাথ দে প্রায়ই স্থানীয় পার্টি অফিসে সঙ্গী সাথীদের নিয়ে মদের আসর বসাচ্ছেন। তিনি জেলা নেতৃত্বকে জানানোর পাশাপাশি এই ঘটনার প্রতিবাদ করে৷ এরপরই তাঁর বাড়িতে চড়াও হয় সোমনাথ দে৷ তাঁকে মারধর করে।

এমনকী বাড়ির মহিলাদের শ্লীলতাহানি করে ও ধর্ষণের হুমকি দেয় বলে তিনি অভিযোগ করেন। এই ঘটনার পর গুরুতর অসুস্থ শান্তিনাথ মুখার্জী ওন্দা সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে ভরতি হন। শুক্রবার তাঁকে এম.আর.আই করার জন্য বিষ্ণুপুর জেলা হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। এই ঘটনায় তিনি পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন৷

সোমনাথ দে এই ঘটনার কথা কিছু বলতে না চায়নি৷ তৃণমূল নেতা প্রদীপ দাস এই ঘটনা সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছেন। তিনি পালটা অভিযোগ করেন, দুঃশ্চরিত্র হিসেবে এলাকায় পরিচিত শান্তিনাথ মুখার্জী আমাদের দলের কেউ নয়। তিনি ফরওয়ার্ড ব্লক দলের নেতা। আমাদের তৃণমূলের পার্টি অফিসে কোন ধরণের অসামাজিক কাজ হয়নি। আমাদের দলকে কালিমালিপ্ত করতেই এই ধরণের অপপ্রচার করছেন উনি। একই সঙ্গে শান্তিনাথ মুখার্জীকে মারধরের ঘটনাও তিনি সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছেন।

----
-----