হ্যাটট্রিকের পর রোনান্ডোর হাসিমুখ দেখতে চান ভক্তরা

সান্তা ক্রুজ: বিশ্বকাপের ১১টি ম্যাচ খেলা হয়ে গিয়েছে৷ রাশিয়ার মাঠ পরীক্ষা নিয়েছে রোনাল্ডো, মেসি, নেইমারদের৷ পরীক্ষায় এখনও অবধি উৎরাতে পেরেছেন সিআর সেভেন৷ বিশ্বকাপের দ্বিতীয় দিন সোচির ফিস্ত স্টেডিয়ামে স্পেনের বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচেই হ্যাটট্রিক করে স্বপ্নের শুরু করেছেন পর্তুগিজ স্ট্রাইকার ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো৷ এরপরই রোনাল্ডো নামাঙ্কিত মাদেইরা এরায়পোর্টে সিআর সেভেনের হাসিমুখের একটি মূর্তি বসানোর জন্য পিটিশন দিয়েছে ভক্তকুল৷

গত মার্চ মাসে মাদেইরা এয়ারপোর্টে রোনাল্ডোর একটি স্ট্যাচু বসানো হয়৷ শহরের বিখ্যাত ভাস্কর এমানুয়েল সান্তোস পর্তুগালের তারকা প্লেয়ারের ওই ভাস্কর্যটি বানিয়েছিলেন৷ তিন সপ্তাহ ধরে এয়ারপোর্টে স্থান পেয়েছিল রোনাল্ডোর ভাস্কর্যটি৷ এই সময়ে গোল্ডেন কালারের এই স্ট্যাটুটি রোনাল্ডো ভক্তদের বিরোধের মুখে পড়ে৷ রোনাল্ডোর হাসি মুখের ওই মূর্তিটি নিয়ে মজা করা শুরু হয়৷ সোনালি রঙের পরিবর্তে কালো রঙের রোনাল্ডো স্ট্যাচু সরানোর দাবি ওঠে৷ বাধ্য হয়েই সান্তোস স্ট্যাচুটি এয়ারপোর্ট থেকে সরিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়৷

- Advertisement -

মাদেইরা বিমানবন্দরে সিআর সেভেনের হাসিমুখের মুর্তিটি সরিয়ে একটি নতুন রোনাল্ডো মুর্তি বসানো হয়৷ এই নতুন স্ট্যাচুটিতে ভক্তদের দাবি মেনে ছেঁটে ফেলা হয়েছিল পর্তুগাল তারকা স্ট্রাইকরের ‘হাসি’৷ পরিবর্তিত রোনাল্ডো মূর্তিটি নিয়েও অসন্তুষ্ট সিআর সেভেন ফ্যানকুল৷ স্পেন বনাম পর্তুগাল ম্যাচে রোনাল্ডোর অসাধারণ হ্যাটট্রিকের পর তাঁর হাসিমুখই দেখতে চাইছেন ফ্যানরা৷

চির প্রতিদ্বন্দ্বী মেসি বিশ্বকাপের মঞ্চে প্রথম ম্যাচে পেনাল্টি মিস করে ভিলেন প্রতিপন্ন হলেও বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচেই পেনাল্টি থেকে গোল পান সিআর সেভেন৷ ম্যাচটির প্রথমার্ধের ৪ মিনিটে নাচোর ফাউলে পেনাল্টি পায় পর্তুগাল৷ সেই পেনাল্টি থেকে স্পটকিকে গোল করতে কোনও ভুল করেননি ক্রিশ্চিয়ানো৷

স্পেনের বিরুদ্ধে তাঁর তিনটি গোল (৪,৪৪,৮৮মি) দেখে বিশ্বকাপের শুরুতেই বলতে হচ্ছে গোলমেশিন রোনাল্ডো হইতে সাবধান! সোচিতেই রণহুংকার দিয়ে রেখেছেন সিআর সেভেন৷ স্পেন ম্যাচে পর্তুগিজ তারকার পা থেকে সেরা গোলটি আসে ৮৮ মিনিটে৷ ফ্রি-কিকে বিশ্বমানের গোল করে পর্তুগাল-স্পেন ম্যাচের স্কোরলাইন ৩-৩ করেন রোনাল্ডো৷

Advertisement
---