জঙ্গিপনা ভুলে আফগান যুবকদের ব়্যাম্পে হাঁটাচ্ছেন ইলিয়াস

কাবুল: আফগানিস্তান বলতে এতদিন একটাই শব্দ উঠে আসত৷ তা হল তালিবান৷ এবার ‘আফগানিস্তান মানেই জঙ্গিবাদ’, এই বদনামী পরিচয় থেকে বেরিয়ে আসত চলেছে তালিবানদের দেশ৷ আর এই বিড়ালের গলায় ঘণ্টাটা বেঁধে আফগানিস্তানের পরিচয় পরিবর্তনের কাজে নেমে পড়েছেন আমস্টারডাম-ভিত্তিক ফ্যাশন ডিজাইনার নাভেদ ইলিয়াস৷ নতুন নতুন ডিজাইনের মাধ্যমে তালিবান দেশের ভাবমূর্তি নয়া রূপে গড়ে তোলার প্রয়াস শুরু করেছেন৷

পশ্চিম বিশ্বে পাগড়ি, লম্বা আলখাল্লার মতো আফগান পোশাককে প্রায়ই ইসলামি জঙ্গিদের সঙ্গে তুলনা করা হয়৷ এই বেশে কাউকে দেখলেন পশ্চিম বিশ্ব তাকে জঙ্গি বলেই মনে করে৷ কিন্তু এই বেশভূষা বাস্তবিক অর্থে সমৃদ্ধ আফগান সংস্কৃতির একটা অঙ্গ৷ আমস্টারডামে সর্বশেষ ফ্যাশন শো ‘রাইজ ফ্রম দ্য এশেজ’ বা ধ্বংসাবস্থা থেকে পুনরুত্থানে এই পশ্চিমী ধারণা পরিবর্তনের চেষ্টা করেছেন আফগান বংশোদ্ভূত ডাচ নাগরিক নাভেদ ইলিয়াস৷ ইতিমধ্যেই বিশ্বের বিভিন্ন দেশে নিজের করা ডিজাইনের প্রদর্শনী করেছেন ইলিয়াস৷ জন্মভূমি এবং নিজের সংস্কৃতির শিকড়ের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েই গড়ে তুলেছেন নিজের কোম্পানি ‘জাজাই’৷

আরও পড়ুন: আগামী অক্টোবরেই ধ্বংস হচ্ছে পৃথিবী

- Advertisement -

ইলিয়াসের জন্ম ১৯৯৩ সালে৷ তালিবানশাসিত আফগানিস্তানে৷ সোভিয়েত বাহিনী চলে যাওয়ার পর কাবুলের ক্ষমতা দখল নিয়ে দেশটির বিভিন্ন ইসলামি যোদ্ধাদের সংগঠনের মধ্যে তখন চলছে রক্তক্ষয়ী গৃহযুদ্ধ৷ সেই স্মৃতি কিছুটা মনে আছে ইলিয়াসের৷ তাঁর ডিজাইনেও আছে সেই যুদ্ধের প্রভাব৷ আফগানিস্তানের বিভিন্ন অঞ্চলের নিজস্বতার ওপর ভিত্তি করে জাজাইয়ের রং এবং ধাঁচেও আছে আধুনিকতা এবং ঐতিহ্যের সংমিশ্রণ৷ আফগান শিকড় হলেও ইলিয়াসের ডিজাইন প্রভাবিত হয়েছে পশ্চিমী সংস্কৃতি ছাঁচে৷

আরও পড়ুন: আজও রহস্য ঘিরে রেখেছে ভারতের এই শিব মন্দিরকে

কীভাবে এই কাজে চালাচ্ছেন ইলিয়াস? তাঁর মতে, মডেলরা মঞ্চে আসার আগে প্রতিটি খুঁটিনাটি বিষয় খতিয়ে দেখেন ইলিয়াস নিজেই৷ প্রতিটি মডেলকে নিখুঁতভাবে উপস্থাপনের জন্য তাদের পিছনে আলাদা করে সময় দেন তিনি৷ লক্ষ্য একটাই, নিজের উদ্দেশ্য সবচেয়ে ভালোভাবে দর্শকদের সামনে উপস্থাপন করা৷র্যা ম্পে ক্যাটওয়াকের মধ্যেই শুধু সীমাবদ্ধ থাকে না ইলিয়াসের ফ্যাশন শো৷

আরও পড়ুন: দু’দিনে পাকিস্তানের ১৭০টি ট্যাংক উড়িয়ে দিয়েছিল ভারত

‘রাইজ ফ্রম দ্য এশেজ’ শোতে ফুটিয়ে তোলা হয় যুদ্ধ ও বোমায় বিধ্বস্ত আফগানিস্তানের ইতিহাস৷ এই ছবিতে আফগানিস্তান কীভাবে সহিংসতার শৃঙ্খলে আবদ্ধ হয়ে আছে, সেটি ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করা হয়েছে৷ এই আফগান-ডাচ ডিজাইনার মনে করেন, তরুণরাই আফগানিস্তানের ভবিষ্যত৷ একটি সংবাদ মাধ্যমকে তিনি বলেন, ‘‘আমি তরুণদের একটা বিকল্প চিন্তাধারার সন্ধান দিতে চাই৷ অন্ধভাবে নেতাদের পিছনে ছোটা তরুণ আফগানদের ত্যাগ করতে হবে৷’’

আরও পড়ুন: ২৭ বছর আগে! রেলের কামরায় এই যুবতীর সম্মানরক্ষা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী মোদী

দেশের বাইরে অনেকদিন ধরে বসবাস করলেও আফগানিস্তান নিয়ে ইলিয়াসের রাজনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গি খুব পরিষ্কার৷ নিজের কাজের মাধ্যমে আফগান রাজনীতি, দুর্নীতি এবং যুদ্ধবাজদের কঠোর সমালোচনা করতে চান ইলিয়াস৷ তিনি বলেন, ‘‘অবশ্যই আমি রাজনীতি নিয়ে চিন্তা করি৷ আমি আমার রাজনৈতিক চিন্তাভাবনা প্রকাশে কুণ্ঠিতও নই৷’’

আরও পড়ুন: কলকাতার কাছে দূরে গরমে বেড়াতে যাওয়ার পাঁচ গন্তব্য

Advertisement ---
-----