সুভাষ বৈদ্য, কলকাতা: কথা ছিল বাবার মৃত্যুর পর তার অঙ্গদান করা হবে। সেই দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল ছেলেকে। কিন্তু মঙ্গলবার ঘটল উলটপুরাণ। যা শুনে অবাক হয়ে যাবেন। কী সেই ঘটনা?

আরও পড়ুন: বালি-পাথরের বিরুদ্ধে অভিযানে ১০ লক্ষ জরিমানা আদায়

মঙ্গলবার দুপুরে কালীঘাট নেপাল ভট্টাচার্য রোডের বাসিন্দা ত্রিজিত ঘোষ (২৬) বাইক নিয়ে বেরিয়ে ছিলেন। পর্ণশ্রী থানার উপেন ব্যানার্জি রোডে বাসের ধাক্কায় আহত হন ত্রিজিত। পুলিশ তাঁকে উদ্ধার করে বেহালা বিদ্যাসাগর হাসপাতালে নিয়ে আসে। সেখানে ডাক্তাররা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

আরও পড়ুন: স্ত্রীর খুনে অভিযুক্ত স্বামীকে ফের হেফাজতে নিল পুলিশ

খবর পেয়ে হাসপাতালে আসেন বৃদ্ধ বাবা স্নেহাশিস ঘোষ। ডাক্তারের সঙ্গে কথা বলতে বলতে কান্নায় ভেঙে পড়েন তিনি। বলেন, ‘‘এমনটা তো হওয়ার কথা ছিল না। কোথায় আমার মৃত্যুর পর ছেলে আমার অঙ্গদান করবে। তা যখন হল না, আজ আমিই ছেলের অঙ্গদান করব।’’

আরও পড়ুন: চলন্ত ট্রেনে দুর্ঘটনায় মারাত্মক জখম তিন যাত্রী

এর পরই শুরু হল প্রশাসনিক তৎপরতা। তৈরি হল গ্রিন করিডর। দেহ নিয়ে আসা হল এসএসকেএম হাসপাতালে। বাবা ছেলের দুটি চোখ, ত্বকদান করেন স্বাস্থ্য দফতরকে। চোখ দু’টি রাখা হয়েছে আই ব্যাংকে। অন্য কারও দেহে প্রতিস্থাপন করা হবে ত্রিজিতের চোখ। আর তার মাধ্যমে ত্রিজিত দেখবে এই বিশ্বকে।

আরও পড়ুন: শহরে স্যার রাজেনের জন্মদিন পালনের উদ্যোগ

--
----
--