জেনে নিন কোন দিকে কোন দেবতা থাকেন?

বাস্ত্তশাস্ত্র মতে চার দিক ও চার কোণের উপর মানুষের সর্বসিদ্ধি, সমৃদ্ধি ও কল্যাণের অনেকটাই নির্ভর করে৷ বলা হয় আট দিকের প্রত্যেকটা দিকে এক-একজন অধিদেবতা রয়েছেন৷ কোন দিকে কোন দেবতা থাকেন তা একনজরে দেখে নেওয়া যাক৷

উত্তর দিক: বাস্তুমতে উত্তর দিক অত্যন্ত শুভ৷ এই দিকের অধিদেবতা হল-কুবের সোম বা চন্দ্র৷ সেই কারণে উত্তর দিককে অর্থ ও পেশাগত উন্নতির দিক হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। বুধ হল উত্তর দিকের গ্রহ। বাস্তুপুরুষের বুক ও পেট উত্তর দিকে থাকে। তাই ঘরের উত্তর দিক সব সময় খোলামেলা, আলোকজ্জ্বল ও সুন্দর করে সাজিয়ে রাখা জরুরি। আধুনিক বাস্তুবিশেষজ্ঞদের মতে উত্তর মেরুর কারণে উত্তর দিক থেকে প্রচুর পরিমাণে ভালো শক্তি নির্গত হয়।

দক্ষিণ দিক: অধিদেবতা এই দিকের অধিষ্ঠাত্রী দেবতা হলেন যম৷ দক্ষিণ দিকে বন্ধ দেওয়াল থাকলে অর্থ ও প্রতিপত্তি বৃদ্ধি পাবে। এই দিকের প্রতিনিধি গ্রহ হল মঙ্গল।

- Advertisement -

পূর্ব দিক: অত্যন্ত শক্তিশালী দিক। এই দিকের অধিদেবতা হলেন ইন্দ্র ও সূর্য৷ গুরুত্ব শাস্ত্র মতে এই দিকটি পৈতৃক স্থান৷ সূর্যের প্রভাবে জীবনে উন্নতি হয়। স্থায়ীভাবে বসবাসের জন্য বাসগৃহ তৈরির সময় জমির পূর্বদিকটি খোলামেলা রাখা প্রয়োজন৷ এই দিকটি আবদ্ধ থাকলে গৃহস্বামীর স্বাস্থ্যহানির আশঙ্কা দেখা যেতে পারে৷

পশ্চিম দিক: এই দিক জীবনে প্রতিষ্ঠা ও সমৃদ্ধির দিক। এই দিকের অধিপতি হলেন বৃষ্টি, খ্যাতি ও ভাগ্যের দেবতা বিষ্ণু। এই দিকের প্রতিনিধি গ্রহ হল শনি। বাড়ির পশ্চিম দিক খুব একটা খোলামেলা রাখা বাঞ্ছনীয় নয়।

উত্তর পূর্ব কোণ: বাস্তুমতে খুবই ভালো দিক। এই দিকের অধিপতি হলেন হিন্দুদের শ্রেষ্ঠ দেবতা শিব। এর প্রতিনিধি গ্রহ হল বৃহস্পতি। ধনসম্পত্তি, প্রতিপত্তি ও সুস্বাস্থ্য দান করে। ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য উত্তরপূর্ব অত্যন্ত শুভ দিক। এই দিক থেকে শক্তিশালী চৌম্বকীয় শক্তি নির্গত হয়। বাড়ির উত্তরপূর্ব দিকে শৌচাগার নির্মাণ গোটা পরিবারকে শেষ করে দিতে পারে। এই দিকে দাহ্য পদার্থ রাখা উচিত নয়। বড় নির্মাণও না করাই ভালো।

দক্ষিণ পূর্ব কোণ: দক্ষিণপূর্ব দিকের অধিপতি হল অগ্নিদেব। এর প্রতিনিধি গ্রহ শুক্র। আগুন সংক্রান্ত কাজকর্ম এই দিকে করলে ভালো হয়। এই দিকে জিনিসপত্র রাখা ও নির্মাণ করার সময় সতর্ক থাকা জরুরি।

দক্ষিণ পশ্চিম কোণ: এই দিকের অধিপতি হল নিরিতি নামের এক রাক্ষস। এর প্রতিনিধি গ্রহ রাহু। উত্তরপূর্ব দিক থেকে নির্গত চৌম্বকীয় শক্তি এই দিকে সঞ্চিত হওয়ায় এটাই বাড়ির সবচেয়ে শক্তিশালী দিক। এই দিকের সঠিক ব্যবহার খুবই শক্তিশালী ও স্বাস্থ্যকর জীবন দিতে পারে। এই দিক সম্পদ, স্বাস্থ্য ও আত্মবিশ্বাসের দিক হিসেবে চিহ্নিত। বাস্তু মেনে ব্যবহৃত হলে দক্ষিণ পশ্চিম দিক খ্যাতি এনে দেবে। কিন্তু ভুল ব্যবহার নানা সমস্যা ডেকে আনবে। অর্থ বেরিয়ে যাবে। হতাশা, উদ্বেগ এমনকি আত্মহত্যাপ্রবণতাও দেখা দিতে পারে। কর্মক্ষেত্রে দক্ষিণ পশ্চিম দিকের ভুল ব্যবহার কর্মীদের কাজে অমনোযোগের কারণ।

উত্তর পশ্চিম কোণ: এই দিকের অধিপতি হল বায়ু। এর প্রতিনিধি গ্রহ হল চন্দ্র। বাতাস এর মূল উপাদান হওয়ায় এই দিকটি খুবই অস্থির দিক। এই দিকের সঠিক ব্যবহারে জীবনে নানা সুযোগ আসে। পেশাগত জীবনে উন্নতি হতে পারে। তবে বাস্তুমতে এর ভুল ব্যবহার বিভ্রান্তির সৃষ্টি করে।এর ফলে অসুখবিসুখও হতে পারে।

Advertisement ---
-----