নৈহাটিতে মাছ ব্যবসায়ীকে খুন

প্রতীকী ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: নিজের বাড়িতেই খুন হলেন এক মাছ ব্যবসায়ী। মৃত ব্যক্তির নাম রাসমোহন ঘোষ ওরফে বাবুয়া (৫৩)। উত্তর ২৪ পরগনার নৈহাটি রাজেন্দ্রপুর এলাকায় নিজের বাড়ির ভিতরেই খুন হন অবিবাহিত ওই মাছ ব্যবসায়ী। তাঁকে পিটিয়ে খুন করা হয়েছে বলে অভিযোগ।

স্থানীয় সূত্রে খবর, মঙ্গলবার সকাল থেকে ওই মাছ ব্যবসায়ীর কোনও সাড়াশব্দ পাওয়া যাচ্ছিল না৷ সন্দেহ হওয়াতে তাঁর বৌদি তাঁকে ডাকতে যায়৷ তখনই ঘরের মধ্যে রাসমোহনবাবুর নিথর দেহ পড়ে থাকতে দেখেন৷ কিভাবে এই মৃত্যু কিছু বুঝে উঠতে না পেরে প্রতিবেশীদের খবর দেয় মৃত বাবুয়ার বৌদি৷ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয় স্থানীয় পুলিশ৷ পুলিশের প্রাথমিক অনুমান খুন করা হয়েছে রাসমোহন ঘোষকে৷

আরও পড়ুন: বারের আড়ালে হাওড়ায় রমরমিয়ে চলছে অশ্লীল নাচ

- Advertisement -

প্রসঙ্গত, নৈহাটি অঞ্চলে মাছের প্রচলন বৃদ্ধির জন্য একসময় রাষ্ট্রপতি পুরষ্কার পেয়েছিলেন মৃত বাবুয়ার বাবা নীলরতন ঘোষ। পরে তাঁর পাঁচ ছেলেই নৈহাটির রাজেন্দ্রপুর মাছ বাজারে মাছের ব্যবসা করতেন। এর আগে নীলরতন ঘোষের পাঁচ ছেলের মধ্যে ২০০০ সালে খুন হয়েছিলেন বাবুয়ার মেজ দাদা। এবার নীলরতন বাবুর ছোট ছেলে খুন হলেন। জানা গিয়েছে, বাবুয়ার ঘরে দু’টো পোষ্য কুকুর ছিল। সকালে ওই কুকুর দু’টোকে ঝিমোতে দেখা গিয়েছে। পরিবারের অনুমান, খুনের আগে দুষ্কৃতীরা ঘরের পোষ্যদের অজ্ঞান করার স্প্রে করে ঘুম পাড়িয়ে দিয়েছিল।

আরও পড়ুন: প্রাণ বাঁচিয়ে বন্যা কবলিত কেরল থেকে ফিরল পাঁচ যুবক

তবে ঠিক কি কারণে বাবুয়াকে খুন করা হল তা স্পষ্ট নয় পুলিশের কাছে। ইতিমধ্যেই নৈহাটি থানার পুলিশ গোটা ঘটনার তদন্তে নেমেছে। মৃতের আত্মীয়দের জেরা করে পুলিশ জানার চেষ্টা করছে বাবুয়ার সঙ্গে কারোর কোনও শত্রুতা ছিল কি না? যদিও এই ঘটনায় পুলিশ এখনও কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি।

অন্যদিকে, মৃতের ভাইপো মহেন্দ্র প্রতাপ ঘোষ বলেন, ‘‘মৃত কাকার শরীরে লক্ষাধিক টাকার সোনার গহনা ছিল৷ মৃতদেহ উদ্ধারের পর তা উধাও হয়ে গিয়েছে৷ খোয়া গিয়েছে ব্যাংকের নথিপত্রও। ফলে দুষ্কৃতীরা লুঠপাটের উদ্দেশ্যেও এই খুন করে থাকতে পারে। পুলিশ আশ্বাস দিয়েছে দুষ্কৃতীদের শীঘ্রই গ্রেফতার করবে।’’

আরও পড়ুন: চার বছরে এশিয়াড থেকে চার পদক, তবু চাকরী নেই তারকা শুটারের

Advertisement ---
-----