‘বয়স ফ্যাক্টর নয়, ফিটনেসই আসল’

মুম্বই: আইপিএলের সংসারে চেন্নাই সুপার কিংসের রূপকথার কাম-ব্যাক প্রমাণ করে দিল, ক্রিকেটে বয়স কখনও বাধা হয়ে দাঁড়ায় না, ফিটনেসই আসল কথা৷ অন্তত চেন্নাই অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির তেমনটাই মত৷

গত জানুয়ারির আইপিএল নিলামের সময় ন’জন ত্রিশোর্ধো ক্রিকেটার দলে নেওয়ার জন্য সিএসকে ম্যানেজমেন্টের কম সমালোচনা হয়নি৷ সেই ত্রিশ টপকে যাওয়া ক্রিকেটাররাই চেন্নাইকে তৃতীয় আইপিএল খেতাব এনে দেওয়ার পর ছবিটা বদলে গিয়েছে পুরোপুরি৷

চেন্নাইয়ের খেতাব জয়ে ওয়াটসন, রায়াড়ু, ধোনি, ব্রাভো, রায়না, ডু’প্লেসি, সবার কমবেশি অবদান রয়েছে৷ সানরাইজার্সের বিরুদ্ধে ফাইনাল খেলতে নামা চেন্নাই দলে সাতজন ক্রিকেটারের বয়স ত্রিশ টপকেছে৷ রবীন্দ্র জাদেজা ক’দিন পরেই সেই ক্লাবে নাম লেখাবেন৷ চাহার, শার্দুল ও লুঙ্গি, এই তিনজনের বয়স কেবল ত্রিশের বেশ কিছুটা কম৷

- Advertisement -

ওয়াংখেড়েতে আইপিএল ট্রফি হাতে ৩৬ বছরের ধোনি বলেন, ‘বয়স নয়ে আমরা অনেক কথা বলি৷ তবে আসল বিষয় হল ফিটনেস৷ রায়াড়ুকেই উদাহরণ হিসাবে ধরা যাক৷ ওর বসয় ৩২৷ কিন্তু ও দারুণ ফিট৷ মাঠে অনেকটা জায়গা কভার করে৷ গোটা টুর্নামেন্টে অনেকটা সময় ওকে মাঠে কাটাতে হয়েছে৷ তাতে কেনও অভিযোগ নেই ওর৷ খেলায় কোনও প্রভাব ফেলেনি ওর বসয়৷ সুতরাং ক্রিকেটে ফিটনেসটাই সব, বসয় সংখ্যা মাত্র৷’

ধোনি আরও বলেন, ‘একজন ক্যাপ্টেন চায় মাঠে ক্রিকেটারদের গতিবিধিতে জড়তা না থাকে৷ কে কোন সালে জন্মেছে, তা নিয়ে কে ভেবে কী লাভ৷ তবে এটা ঠিক যে, আমি যদি ওয়াটসনকে এক রান বাঁচানোর জন্য ঠেলে দিই, তবে ওর চোট পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি৷ তখন পরের ম্যাচে ওপে পাওয়া যাবে কি না, তা অনিশ্চিত হয়ে দাঁড়াবে৷ এক্ষেত্রে বুঝে শুনে ক্রিকেটারদের ব্যবহার করা অধিনায়কের কর্তব্য৷ এক রানের জন্য চোট পাওয়ার কোনও মানে হয় না৷’

Advertisement ---
---
-----