জঙ্গল সুরক্ষায় বন দফতরের প্রমীলা-বাহিনী

স্টাফ রিপোর্টার, পুরুলিয়া: জঙ্গল পাহারায় এবার পুরুষদের সঙ্গে থাকবেন মহিলা বনরক্ষীরাও!

কাঠ চোর ও চোরাশিকারীদের দাপট রুখতে বনদফতরের পুরুলিয়া বিভাগ এবার জঙ্গল পাহারায় মহিলা বনকর্মী বা রক্ষীদেরও নামাল। যেভাবে ঝাড়গ্রামের লালগড়ের বাঘঘরা জঙ্গলে রয়্যাল বেঙ্গলকে হত্যা করল শিকারীরা তাতে উদ্বিগ্ন বনদফতর। তাই বন্যপ্রাণ-সহ জঙ্গল বাঁচাতে বনদফতরের পুরুলিয়া বিভাগ এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। পুরুলিয়ার জয়পুর বনাঞ্চল দিয়ে এই কাজ শুরু করেছে বনদফতর। এরপর ধাপে-ধাপে পুরুলিয়া বিভাগের বাকি সাতটি বনাঞ্চল ঝালদা, কোটশিলা, বাঘমুন্ডি, আড়ষা, বলরামপুর, মাঠা, অযোধ্যা পাহাড়েও মহিলা বনরক্ষী দিয়ে জঙ্গল পাহারার কাজ শুরু হবে বলে বন দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে।

আড়শা বনাঞ্চলের মহিলা বনসুরক্ষা কমিটি যেভাবে জঙ্গল পাহারা দিয়ে নজির গড়েছে, তাদের দেখানো পথেই পুরুলিয়া বিভাগ জঙ্গল পাহারায় বনকর্মীদেরকে নামাল। আসলে বনকর্মীরা জঙ্গল পাহারা দিতে গিয়ে দেখেছে বহু মহিলা জঙ্গল কাটার কাজে যুক্ত। ফলে পুরুষ বনকর্মীদের পক্ষে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার ক্ষেত্রে সমস্যা হয়। তাছাড়া জঙ্গল পাহারায় লাঠি হাতে মহিলা বনরক্ষী থাকলেও পুরুষ কাঠচোররা সেভাবে জঙ্গল কাটতে পারবে না।

- Advertisement -

আড়শা মহিলা বন সুরক্ষা কমিটি এই ব্যাপারে কার্যত মডেল। পুরুলিয়া বিভাগের ডিএফও রামপ্রসাদ বদানা বলেন, “এবার থেকে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি জঙ্গল পাহারার কাজে পুরুষ বনকর্মীদের সঙ্গে মহিলা বনরক্ষীরাও থাকবে। কারণ, জঙ্গলে দেখা গিয়েছে ব্যাপক হারে মহিলা কাঠ চোর থাকে। তাই আমরা এই পদক্ষেপ নিলাম।”

তাছাড়া বনদফতর মনে করছে জঙ্গল পাহারায় মহিল বনকর্মীরা কোনও অনুরোধ করলে, তা শুনতে পারে জঙ্গল ক্ষতি করা মানুষজন। যেভাবে লালগড়ে এক মহিলা বনকর্মী শিকারীদের পায়ে পড়ে জঙ্গলে ঢোকা আটকাতে পেরেছিলেন। সফল হয়েছিল দফতর। এবার পুরুলিয়া বনবিভাগ সেই পথে হেঁটেই বাজিমাত বন্যপ্রান ও জঙ্গল বাঁচাতে চাইছে।

জয়পুরের বিট অফিসার বাচ্চু সরকারের নেতৃত্বে পুরুষ-মহিলা বনরক্ষী মিলে কাজ শুরু হয়েছে ওই বনাঞ্চলে। ওইদিন জয়পুর বনাঞ্চলের বাঙ্গিদিরি, তালমু, জয়পুর বিটে চারটি গাড়িতে করে পুরুষ-মহিলা বনরক্ষী মিলিয়ে জঙ্গল রুখতে অভিযান চলান। জয়পুরের বিট অফিসার বাচ্চু সরকার বলেন, “আমরা এই যৌথ অভিযানের প্রথম দিনই সাফল্য পাই। বাঙ্গিদিরি বিট থেকে ৩৫ সিএফটি চোরাই কাঠ উদ্ধার করেছি। এইভাবে পুরুষ–মহিলা বনরক্ষী কে নিয়ে যৌথ অভিযান ধারাবাহিক ভাবে চলবে।”

Advertisement
---