কোচবিহার: “নেতাজী ভাবনা যাত্রা” সূচনা করল সারা ভারত ফরওয়ার্ড ব্লকের বাংলা কমিটি৷ শুক্রবার আলিপুরদুয়ার থেকে এই যাত্রার সূচনা করেন সারা ভারত ফরওয়ার্ড ব্লকের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক নরেন চট্টোপাধ্যায়। পরে তা কোচবিহারে আসে। আগামী তিন দিন কোচবিহারের বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করবে এই যাত্রা৷ তারপর জলপাইগুড়ি যাবে৷ সেখানে উপস্থিত থাকবেন দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক দেবব্রত বিশ্বাস। সেখান থেকে উত্তরবঙ্গের বাকি জেলা ঘুরে ২১ জানুয়ারি কলকাতায় শেষ হবে এই যাত্রা।

এদিন নরেন চট্টোপাধ্যায় জানান, আরও দুটি যাত্রা ১৩ জানুয়ারি আসানসোল ও ১৬ জানুয়ারি বীরভূমের মল্লারপুর থেকে শুরু হবে৷ দুটি যাত্রা একই দিনে কলকাতায় এলগিন রোডে নেতাজীর বাসভবনের সামনে শেষ হবে৷ বিজেপি দেশ জুরে সাম্প্রদায়িকতার যে বিষ ছড়াচ্ছে তাঁর বিরুদ্ধে নেতাজীর সাম্প্রদায়য়িকতা বিরোধী ভাবনাকে মানুষের মধ্যে তুলে ধরতেই এই যাত্রা। এদিন তিনি বিজেপির রথ যাত্রাকে সাম্রদায়িক দাঙ্গা লাগানোর যাত্রা বলে অবিহিত করেন। নরেন্দ্র মোদীর নেতাজীর প্রতি শ্রদ্ধাকেও কটাক্ষ করেন তিনি৷ তিনি দাবি করেন নেতাজীকে প্রকৃতভাবে যিনি ভালবাসেন তিনি কখনওই সাম্প্রদায়িক হতে পারেন না।

এদিন আলিপুরদুয়ার থেকে সোনাপুর হয়ে প্রথমে কোচবিহারের পাতলাখাওয়া, সেখান থেকে পুন্ডিবাড়ি, ঢাংডিংগুড়ি, বানেশ্বর গোপালপুর হয়ে কোচবিহার খাগড়াবাড়ি আসেন এই যাত্রা। এরপর খাগড়াবাড়ি থেকে নীলকুঠিরহাট, খাপাইডাঙ্গা, কালজানি হয়ে বিকেলে কোচবিহার শহরে আসে। পথে বিভিন্ন স্থানে সভা করেন ফরওয়ার্ড ব্লকের নেতারা।

নরেন চট্টোপাধ্যায় ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন রাজ্য সম্পাদক মণ্ডলীর সদস্য গোবিন্দ রায়, দীপক সরকার, কোচবিহার উত্তরকেন্দ্রের বিধায়ক নগেন্দ্র নাথ রায় সহ কোচবিহার জেলা ফরওয়ার্ড ব্লকের অন্যান্ন নেতারা।

--
----
--