স্বেচ্ছায় হিন্দু ধর্ম গ্রহণ করল চার মুসলিম পরিবার

লখনউ: ইসলামের সৃষ্টি অনেক আগে থেকে রয়েছে হিন্দু ধর্ম। পূর্ব পুরুষরা সকলেই ছিল হিন্দু। সেই কারণে ইসলাম ছেড়ে হিন্দু ধর্ম গ্রহণ করল উত্তর প্রদেশের চারটি পরিবার। ঘটনাটি ঘটেছে যোগী আদিত্যনাথের রাজ্য উত্তর প্রদেশে। ওই রাজ্যের আম্বেদনগর জেলার জালালপুর শহরে ঘটেছে এই ঘর ওয়াপসি।

জানা গিয়েছে, জালালপুরের কসাইটোলার এক দেবীর মন্দিরে বৈদিক রীতি মেনে উক্ত চারটি পরিবারকে হিন্দু ধর্মের ছাতার তলায় নিয়ে আসা হয়। সকলকে দেওয়া হয় হনুমান চল্লিশা পাঠ করে, নারকেল ফাটিয়ে পুরোহিতের উপস্থিতিতে ওই চার পরিবারের আট জনকে ইসলাম ছেড়ে হিন্দু ধর্ম গ্রহণ করেন।

সনাতন ধর্মে সামিল হয়েছেন সুরজা। এটা তাঁর নতুন নাম। হিন্দু ধর্মে আসার আগে তাঁর নাম ছিল সাকিনা। তাঁর কথায়, “আমাদের পূর্ব পুরুষ সকলেই হিন্দু ছিলেন। আমরা পরে ধর্মান্তরিত হয়ে মুসলিম হয়েছিলাম। এখন আমরা ফের হিন্দু ধর্ম গ্রহণ করলাম।” একইসঙ্গে তিনি আরও বলেছেন, “অনেকদিন আমরা ইসলাম মেনেছি। এখন থেকে আমরা হিন্দু ধর্ম গ্রহণ করলাম। হিন্দু ধর্মের রীতি নীতি মেনেই এবার থেকে চলব।”

- Advertisement -

উত্তর প্রদেশে এই ধর্মান্তর বা ঘর ওয়াপসির ঘটনা নতুন কিছু নয়। বেশ কয়েক বছর ধরে মাঝে মাঝেই শোনা গিয়েছে ঘর ওয়াপসির খবর। এই নিয়ে বিতর্কও কিছু কম হয়নি। প্রবল সমালোচনা সত্ত্বেও হিন্দু সংগঠনগুলি দাবি করেছিল যে ঘর ওয়াপসি প্রক্রিয়া চলতেই থাকবে। সেই পথে হেঁটেই কী ঘটল জালালপুরের ধর্মান্তরের ঘটনা? এই বিষয়ে জালালপুরের কসাইটোলা মন্দিরের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, “এই চারটি মুসলিম পরিবারের আট জন হিন্দু ধর্ম গ্রহণ করেছেন। সকলেই স্বেচ্ছায় হিন্দু ধর্মে সামিল হয়েছেন। বলপূর্বক কিছু করা হয়নি।”

Advertisement
---