মুম্বই: যে কোনও সময় বন্ধ হয়ে যেতে পারে টেলিকম সংস্থা এয়ারসেল। আর সেখানে চাকরি হারাতে পারেন কর্মীরা। অন্তত ৫০০০ কর্মীর চাকরি হারানোর আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। ইতিমধ্যেই সংস্থার কর্মীদের সে বিষয়ে সতর্কবার্তাও দেওয়া হয়েছে।

এদিকে ওই সংস্থা সবরকম সার্ভিস বন্ধ হয়ে গিয়েছে। ফলে, সমস্যায় পড়েছেন গ্রাহকেরা। এয়ারসেল থেকে পোর্ট করার জন্য লাইন দিয়েছেন তাঁরা। দেশ জুড়ে এয়ারসেল কাস্টমারেরা একই সমস্যায় পড়েছেন। তবে, নেটওয়ার্ক সমস্যার জন্য পোর্ট করতেও অসুবিধা হচ্ছে বলেও অভিযোগ জানিয়েছেন অনেকে।

অনেকে জানিয়েছেন, তারা ফোন করতে বা ফোন রিসিভ করতে পারছেন না। তামিলনাড়ুতে এই সংস্থার অন্তত ২ কোটি গ্রাহক রয়েছে। আর দেশ জুড়ে ৮ কোটি ৮৮ লক্ষ গ্রাহক এই নেটওয়ার্ক ব্যবহার করেন।

সূত্রের খবর, আগেই এয়ারসেল তার কর্মীদের কঠিন সময়ের জন্য তৈরি হতে বলেছিল। কারণ আর্থিক সঙ্কটে ভুগছে এই সংস্থা। কিছুদিনের মধ্যে দেউলিয়া হয়ে যেতে পারে বলেও জানা গিয়েছে। আর এই প্রতিযোগিতার বাজারে এয়ারসেলের মত সংস্থার পক্ষে টিকে থাকাও কঠিন হয়ে গিয়েছে।

Economic Times-এর রিপোর্ট অনুযায়ী, এয়ারসেলের এক্সিকিউটিভ অফিসার কাইজাদ হীরজি বলেন, কিছুদিন আগেই কর্মীদের একটি ইমেল করে বলা হয়েছে, ‘সংস্থায় বেশ কিছুদিন ধরেই ফান্ডিং হচ্ছে না।’ ১৫,৫০০ কোটি ঋণ রয়েছে এই সংস্থার। যেহেতু গত বছরের সেপ্টেম্বর থেকে কোনও ঋণের টাকা মেটানো হয়নি, তাই নতুন নিয়ম অনুযায়ী রিজার্ভ ব্যাংক আর সংস্থাটিকে কোনও সুযোগ দিতে পারবে না।

----
--