রিষড়া কলেজের ঘটনা প্রত্যাশিতই ছিল: গার্গী চট্টোপাধ্যায়

স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: রিষড়ার বিধান চন্দ্র কলেজের মতো ঘটনা অপ্রত্যাশিত কিছু নয়। এমনটা হওয়ারই ছিল। এমনই মন্তব্য করলেন এশিয়ার বৃহত্তম ঋষি বঙ্কিম চন্দ্র কলেজের প্রাক্তন জেনারেল সেক্রেটারি তথা সিপিএম রাজ্য কমিটির সদস্য গার্গী চট্টোপাধ্যায়।

আরও পড়ুন- রিষড়া কলেজের ভিডিও-র সত্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন শিক্ষামন্ত্রী

বৃহস্পতিবার প্রকাশ্যে এসেছে হুগলী জেলার রিষড়ার বিধান চন্দ্র কলেজের ইউনিয়ন রুমের একটি সিসিটিভি ফুটেজ। যেখানে দেখা যাচ্ছে ইউনিয়ন রুমে কলেজের জেনারেল সেক্রেটারির হাতে নিগ্রহের শিকার হতে হচ্ছে এক ছাত্রীকে। একাধিকবার ওই ছাত্রীকে আঘাত করে কলেজের জেনারেল সেক্রেটারি(জিএস) সাহিদ হাসান খান।

- Advertisement -

সিসিটিভি ফুটেজ অনুসারে ওই ঘটনা ঘটেছিল গত মাসের চার তারিখে। তারপরে পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের হলেও উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি অভিযুক্ত জিএস শাহিদ হাসান খানের বিরুদ্ধে। রাজ্যের শাসকদলের ছাত্র সংগঠনের নেতা হওয়ার সুবাদেই পুলিশ ব্যবস্থা নিচ্ছে না অভিযোগ উঠেছে নিগৃহীতার তরফ থেকে।

আরও পড়ুন- “দিদির ভাইয়েরা রাজ্যবাসীকে লাইভ সিনেমা দেখাল রিষড়ায়”

এই ঘটনা প্রসঙ্গে গার্গী চট্টোপাধ্যায় বলেছেন, “এই ধরনের ঘটনা আগে হিন্দি সিনেমায় দেখা যেতো। পরে বাংলা সিনেমাতেও দেখানো হতো। সেই ছবি এখন বাস্তবের মাটিতেও দেখা যাচ্ছে, তাও আবার বাংলার মাটিতে।” এই ধরনের ঘটনার জন্য তিনি রাজ্য প্রশাসন এবং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দায়ী করেছেন। নিজের বক্তব্যের স্বপক্ষে রায়গঞ্জ কলেজ এবং হরিমোহন ঘোষ কলেজের ঘটনার উল্লেখ করেছেন। যে ঘটনায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ছাত্রদের তাণ্ডবকে ‘বাচ্ছা ছেলেদের দুষ্টুমি’ বলে উল্লেখ করেছিলেন।

আরও পড়ুন- জনসংযোগ অস্ত্রেই কঠিন লড়াইয়ে প্রত্যয়ী গার্গী

গার্গী দেবী আরও বলেছেন, “একসময় ঋষি বঙ্কিম চন্দ্র কলেজের সান্ধ্য শাখায় মহিলাদের ভরতি নেওয়ার জন্য আমরা আন্দোলন করেছিলাম। এখন নিরাপত্তার ভয়ে ছাত্রীরা ভরতি হচ্ছে না।” দিদির শাসনে নারীদের নিরাপত্তার অবস্থা কেমন তা এই ঘটনা গুলি থেকেই পরিষ্কার বোঝা যায় বলে দাবি করেছেন নোয়াপাড়া উপনির্বাচনে বাম প্রার্থী গার্গী।

Advertisement
---