ভোটের আগে বাড়ছে না গ্যাসের দাম, স্বস্তি দিয়ে জানাল সরকার

ঢাকাঃ   তোড়জোড় চললেও নির্বাচনের আগে শিল্প খাতে গ্যাসের দাম বাড়ানোর পদক্ষেপ থেকে সরে এসেছে সরকার। সংবাদ সম্মেলন ডেকে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের (বিইআরসি) চেয়ারম্যান মনোয়ার ইসলাম বলেছেন, তারা এখন গ্যাসের দাম বাড়াবেন না। আগামী ডিসেম্বরে একাদশ সংসদ নির্বাচনের প্রস্তুতি চলছে। তার আগে গ্যাসের দাম বাড়ানোর মতো সিদ্ধান্ত নিলে ভোটে তার বিরূপ প্রভাব পড়বে বলে তার বিরোধিতা করছিলেন ক্ষমতাসীন দলের সংসদ সদস্যরা। সেই কারণেই এই সিদ্ধান্ত বলে মনে করা হচ্ছে।

এলএনজি আমদানির প্রেক্ষাপটে আবাসিক ও বাণিজ্যিক সংযোগ বাদে অন্য ক্ষেত্রে গ্যাসের দাম বাড়ানোর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত ১১ থেকে ২৫ জুন শুনানি করে বিইআরসি। শুনানির প্রায় চার মাস পর দাম না বাড়ানোর সিদ্ধান্ত এল। তবে উচ্চমূল্যে এলএনজি আমদানি করায় গ্যাসের দাম সমন্বয় না করার কারণে সরকারের চলতি অর্থবছরে প্রায় তিন হাজার কোটি টাকা ভর্তুকি গুনতে হবে বলে কমিশন হিসাব দেখিয়েছে।

গ্যাসের দাম না বাড়ানোর কারণ দেখিয়ে মনোয়ার ইসলাম বলেন, “গ্যাসের উৎপাদন, এলএনজি আমদানি, সঞ্চালন ও বিতরণ ব্যয় বৃদ্ধি পাওয়া সত্ত্বেও সার্বিক বিষয় বিবেচনা করে ভোক্তা পর্যায়ে বিদ্যমান মূল্যহার পরিবর্তন না করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।” তিনি বলেন, দাম বাড়ানোর জন্য বিতরণ কোম্পানিগুলো ও পেট্রোবাংলার আবেদনে এক হাজার মিলিয়ন ঘনফুট এলএনজি আমদানির কথা উল্লেখ করা হয়েছিল।

বর্তমানে ৩০০ মিলিয়নের মতো হচ্ছে। এছাড়া জাতীয় রাজস্ব বোর্ড হতে গত তিন অক্টোবর পৃথক দুটি এসআরওর মাধ্যমে প্রাকৃতিক গ্যাসের উৎপাদন পযায়ে সম্পূরক শুল্ক এবং আমদানি পযায়ে অগ্রিম কর ও অগ্রিম মূসক প্রত্যাহার করা হয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিতরণ কোম্পানিগুলোর জামানত কমিয়ে কোম্পানিগুলোর উপাদন খরচ কমিয়ে দেওয়ার কারণে এখনই গ্যাসের দাম বাড়ানোর প্রয়োজন মনে করছেন না বিইআরসি চেয়ারম্যান।

----
-----