ধোনির বিরুদ্ধে গম্ভীর অভিযোগ

নয়াদিল্লি: ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়েই জোড়া বিশ্বকাপজয়ী ভারতীয় অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির বিরুদ্ধে একরাশ ক্ষোভ উগড়ে দিলেন গৌতম গম্ভীর৷ ২০১২ সিবি সিরিজে ধোনির বিরুদ্ধে কার্যত স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ তুললেন টিম ইন্ডিয়ার প্রাক্তন ওপেনার৷

গম্ভীর স্পষ্ট জানান যে, ধোনির একটা সিদ্ধান্ত শুধু তাঁকেই নয়, স্তম্ভিত করেছিল সচিন তেন্ডুলকর, বীরেন্দ্র সেওয়াগের মতো সিনিয়র তারকাদেরও৷ প্রাক্তন নাইট অধিনায়ক এও বলেন যে, তিন বছর আগে থেকে কোনও অধিনায়ক পরবর্তী বিশ্বকাপে কারা খেলবে তা ঠিক করে ফেলছে, এই বিষয়টা তাঁকে হতবাক করেছিল৷

আরও পড়ুন: শতরানে ফেয়ারওয়েল গৌতম গম্ভীরের

- Advertisement -

অস্ট্রেলিয়ায় ত্রিদেশীয় সিরিজে ধোনির ক্যাপ্টেন্সি নিয়ে রীতিমতো ক্ষুব্ধ গম্ভীর বলেন, ‘সিরিজ শুরুর আগে ধোনি ঘোষণা করে, একসঙ্গে সচিন, সেহওয়াগ এবং আমাকে প্রথম একাদশে খেলাতে চায় না৷ ২০১৫ বিশ্বকাপের কথা মাথায় রেখে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে ও৷ ক্যাপ্টেনের এমন সিদ্ধান্ত শুধু আমাকেই নয়, সচিন ও সেহওয়াগকেও হতবাক করেছিল৷ আমি কখনও শুনিনি ২০১২ সালে কাউকে বলে দেওয়া হচ্ছে সে ২০১৫ বিশ্বকাপে থাকবে না৷আমি বরাবর বিশ্বাস করে এসেছি যে, যদি কেউ ধারাবাহিকভাবে রান করতে পারে, তবে ক্রিকেট খেলার জন্য বয়সটা কেবল সংখ্যা মাত্র৷’

আরও পড়ুন: গৌতমকে গম্ভীর না থাকার পরামর্শ কিং খানের

গম্ভীর আরও বলেন, ‘ধোনির সিদ্ধান্ত মতোই শুরুর দিকে আমাকে খেলানো হলেও পরে বসিয়ে দেওয়া হয়৷ এটা আমার কাছে বড়সড় ধাক্কা ছিল৷ পরে অবশ্য আমাদের তিনজনকে একসঙ্গে খেলাতে বাধ্য হয় ধোনি৷ এই বিষয়টাও আমি মেনে নিতে পারিনি কখনও৷ যদি ও সিদ্ধান্ত নিয়েই থাকে, তবে সেটা ধরে রাখা উচিত ছিল৷ সেই সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসা মানে, হয় আগের সিদ্ধান্তটা ভুল ছিল, নয়ত পরেরটা৷’

বিষয়টা আরও স্পষ্ট করে গম্ভীর জানান, ‘শুরুর দিকে ঘুরিয়ে ফিরিয়ে আমাদের তিনজনকে খেলানো হয়৷ হোবার্টে যখন আমাদের জিততেই হবে এমন পরিস্থিতি, তখন সচিনের সঙ্গে বীরুকে ওপেন করানো হয়৷ আমি ব্যাট করতে নামি তিন নম্বরে’