টিম ম্যানেজমেন্টকে নজিরবিহীন আক্রমণ প্রাক্তন ভারত অধিনায়কের

লন্ডন: টেস্ট অভিষেকের জন্য হনুমা বিহারীকে অভিনন্দন জানালেও ওভালে করুণ নায়ার সুযোগ না পাওয়ায় চাঁচাছোলা ভাষায় ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্টকে আক্রমণ করলেন প্রাক্তন ভারত অধিনাক সুনীল গাভাসকর৷ সানির মতে, টিম ম্যানেজমেন্টের অপদার্থতা ও দূরদর্শীতার অভাবেই নায়ারকে বঞ্চিত হতে হচ্ছে৷ তিনি সংশয় প্রকাশ করেন, তবে কি টিম ম্যানেজমেন্টের পছন্দ অপছন্দ না জেনেই নির্বাচকরা দলে ঢুকিয়ে দেন নায়ারকে?

আরও পড়ুন: শাস্ত্রীকে ভারতের অতীত রেকর্ড স্মরণ করালেন গাভাসকর

টেস্ট সিরিজের শুরু থেকে জাতীয় দলের সঙ্গে ঘুরে বেড়াচ্ছেন নায়ার৷ দীর্ঘদিন সুযোগের অপেক্ষায় রয়েছেন তিনি৷ অথচ ওভালে একজন বাড়তি ব্যাটসম্যান খেলাতে গিয়ে হার্দিক পান্ডিয়ার পরিবর্তে নবাগত হনুমা বিহারীকে প্রথম একাদশে জায়গা করে দেয় টিম ম্যানেজমেন্ট৷ হনুমার পার্টটাইম স্পিন বোলিং যদি এক্ষেত্রে প্রাধান্য পেয়ে থাকে, তবে গাভাসকরের ধারণা, আগে থেকেই নায়ারকে নিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে পারত থিঙ্ক ট্যাঙ্ক৷

- Advertisement -

আরও পড়ুন: সেহওয়াগের সমালোচনার জবাব দিলেন শাস্ত্রী

অফিসিয়ার ব্রডকাস্টারদের বিশেষজ্ঞের চেয়ারে বসে গাভাসকর বলেন, ‘হনুমাকে অভিনন্দন৷ আশা করি ও অভিষেক টেস্টই শতরান অথবা দ্বিশতরান করুক৷ দীর্ঘদিন ভারতীয় দলের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করে দেশকে টেনে নিয়ে যাক৷ ওর উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ কামণা করি৷ তবে করুণ নায়ারের সঙ্গে অত্যন্ত অন্যায় করা হল৷ ও শুরু থেকে দলের সঙ্গে ঘুরে বেড়াচ্ছে৷ অন্য কাউকে খেলাতে হলে নায়ারের সুযোগ প্রাপ্য ছিল৷’

আরও পড়ুন: ইংল্যান্ডে সিরিজ হার নিয়ে শাস্ত্রীকে কটাক্ষ বীরুর

পরে আরও আক্রমণাত্মক সুরে সানি বলেন, ‘কজন ভারতীয় ব্যাটসম্যানের টেস্টে ট্রিপল সেঞ্চুরি রয়েছে? মাত্র দু’জন৷ নায়ার তাদের মধ্যে একজন৷ এমন একজন ব্যাটসম্যানকে খামখেয়ালিভাবে দলে ঢোকানো হয় আবার পরের সিরিজেই বাদ দিয়ে দেওয়া হয়৷ নির্বাচকরা ইংল্যান্ড সফরের জন্য ওকে বেছে নিলেও হয়ত টিম ম্যানেজমেন্টের পছন্দের পাত্র নয় নায়ার৷ তাই ওকে খেলানো হয়নি একটা ম্যাচেও৷ হয়ত টিম ম্যানেজমেন্ট ওকে দলে চায়নি৷ তাছাড়া শেষ দু’টি টেস্টের দলে পৃথ্বী ও হনুমা জায়গা পেয়েছে৷ টিম ম্যানেজমেন্ট যদি ভাবে হনুমাকে প্রাধান্য দেবে, তবে নায়ারকে আটকে রাখার মানে কি৷ জাতীয় দলের বাইরেও প্রায় সব প্রথমসারির ভারতীয় ক্রিকেটাররা ম্যাচ খেলছে৷ দলে এগারো জনের খেলার সুযোগ থাকে৷ স্কোয়াডের বাকি সাত-আটজনকে অহেতুক আটকে রাখার মানে কি? অন্তত সাউদাম্পটন টেস্টের পর বাকিদের ছেড়ে দেওয়াই যেত৷ এটা সবাই জানে যে, জাতীয় দলে সম্ভাব্য প্রথম একাদশের বাইরের ব্যাটসম্যানরা তেমন একটা নেট প্র্যাকটিস করারও সুযোগ পায় না৷ ছেড়ে দিলে অন্তত দেশে গিয়ে ম্যাচ খেলতে পারত৷’

আরও পড়ুন: কুকের ফেয়ারওয়েল টেস্টে অভিষেক বিহারীর

ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্ট, বিশেষ করে রবি শাস্ত্রীর সিদ্ধান্তের সমালোচনা করে গাভাসকর বলেন, এমন হলে অস্ট্রেলিয়া সফরেও ভুগতে হবে ভারতীয় দলকে৷ তাঁর কথায়, ‘ওয়ান ডে সিরিজের পর হাতে বেশ কিছুদিন সময় ছিল৷ ম্যাচ প্র্যাকটিসের সুযোগ থাকলেও ভারত গুরুত্ব দেয়নি৷ নেট প্র্যাকটিস আর ম্যাচ প্র্যাকটিসের মধ্যে আকাশ-পাতাল তফাৎ৷ এই যদি টিম ম্যানেজমেন্টের ভাবনা চিন্তা হয়, তবে অস্ট্রেলিয়া সফর নিয়েও আমি খুব একটা আশাবাদী হতে পারছি না৷’

Advertisement ---
---
-----