চুলে হাইলাইট করতে কার না ভালো লাগে! তবে পার্লার মানেই একগাদা টাকা খরচ আর রংয়ের কেমিক্যালে চুলেরও বারোটা বাজা। তাই এবার একটু অন্য পথে হাঁটুন। ঘরে বসেই প্রকৃতিক কিছু উপাদান দিয়েই করে ফেলুন চুলে হাইলাইট।

মধু এবং ভিনিগার

Advertisement

২ কাপ ভিনিগার, ১ কাপ মধু, ১ টেবিল চামচ অলিভ অয়েল, ১ টেবিল চামচ এলাচ গুঁড়ো । সবগুলো উপাদান ভাল করে মিশিয়ে নাও। এবার একটি ব্রাশ অথবা চিরুনি দিয়ে যে চুলগুলো হাইলাইট করতে চাইছ, সেখানে এই মিশ্রণটি লাগিয়ে নাও। একটি প্লাস্টিকের ব্যাগ অথবা তোয়ালে দিয়ে চুলগুলো পেঁচিয়ে রাখো। এটি সারা রাত চুলে রাখতে হবে। হাইলাইট করার জন্য সাধারণত রোদে বসে থাকতে হয়, কিন্তু এই মিশ্রণটি ব্যবহার করলে রোদে বসারও প্রয়োজন নেই। মধু হাইড্রোজেন পারঅক্সাইডের মতো চুলের রং পরিবর্তন করে।

লেবু
সবচেয়ে সস্তা এবং সহজলভ্য হেয়ার হাইলাইটার হল লেবু। একটি পাত্রে সমপরিমাণে লেবুর রস এবং জল মিশিয়ে নাও। এবার চুলের গোছা আলাদা করে নিয়ে চুলে লাগিয়ে নাও মিশ্রণটি। তারপর প্লাস্টিকের প্যাকেট অথবা অ্যালুমিনিয়াম ফয়েল দিয়ে চুল ঢেকে রোদে বসে থাকো। চুল শুকিয়ে গেলে শ্যাম্পু করে ফেলো। এভাবে দু’-তিনবার করো। দেখবে, চুলে একটি সুন্দর রং চলে এসেছে।

চা
ক্যামোমাইল টি-ব্যাগ চুল হাইলাইট করতে বেশ কার্যকর। ক্যামোমাইল টি-ব্যাগ ছাড়াও যে কোনও লিকার চা ব্যবহার করতে পার। ১০ মিনিট টি-ব্যাগ দিয়ে জল ফুটিয়ে নাও। টি-ব্যাগ থেকে রং ছড়ালে সেই জল দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলো। এভাবে ১৫ মিনিট রাখো। এটাও ২ থেকে ৩ বার করতে হবে। তারপর চুল শ্যাম্পু করে ফেলো।

দারচিনি
কন্ডিশনার এবং দারচিনির গুঁড়ো মিশিয়ে নাও। এবার এই মিশ্রণটি চুলের উপর থেকে নীচে লাগিয়ে নাও। একটি চিরুনি দিয়ে চুল ভাল করে আঁচড়ে নাও। তারপর চুলগুলো একটা খোঁপা করে নাও। শাওয়ার ক্যাপ অথবা প্লাস্টিকের ব্যাগ দিয়ে চুল পেঁচিয়ে সারারাত রেখে দাও। সকালে শ্যাম্পু করে ফেলো। দেখবে, চুলে সুন্দর রং হয়ে গিয়েছে।

----
--