উপকূলের দিকে ক্রমশ ধেয়ে আসছে রহস্যজনক ভূতুড়ে-জাহাজ!

নেপিদ:  ইয়াঙ্গুনের কাছে সমুদ্রসৈকতে আটকা পড়া রহস্যময় জাহাজ! আর তা নিয়েই এখন তদন্তে নেমেছে মায়ানমার পুলিশ। জাহাজটি কী করে মায়ানমারের জলসীমায় এল, এর পিছনে কোনও উদ্দেশ্য আছে কিনা সেসব খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলেও নিশ্চিত করেছে তারা। মায়ানমারের বাণিজ্যিক রাজধানীর উপকূলের কাছে গত সপ্তাহে জেলেরা ‘স্যাম রাতুলাঙ্গি পিবি ১৬০০’ নামের জাহাজটির সন্ধান পায়। আর এরপর থেকেই তৈরি হয়েছে রহস্য। ইতিমধ্যে নৌ বাহিনী ও সরকারি বিভিন্ন দফতরের আধিকারিকরা সমুদ্রসৈকতে আটকে পড়া ওই জাহাজটির ভিতর অনুসন্ধান চালান। সেই সময় ইন্দোনেশিয়ার পতাকা লাগানো জাহাজটিতে কোনও নাবিক বা পণ্য ছিল না বলে জানিয়েছে ইয়াঙ্গুন পুলিশ।

মায়ানমারের জলসীমায় এবারই প্রথম এই ধরনের ‘ভুতুড়ে জাহাজের’ সন্ধান পাওয়া গেল। বিশ্বজুড়ে জাহাজ চলাচলের খবরাখবর দেওয়া মেরিন ট্রাফিক ওয়েবসাইটের তথ্য অনুযায়ী, ‘স্যাম রাতুলাঙ্গি পিবি ১৬০০’ নামের জাহাজটি ২০০১ সালে নির্মিত হয়। কনটেইনার পরিবহনের কাজে ব্যবহৃত এই জাহাজের দৈর্ঘ্য ১৭৭ মিটারেরও বেশি। জাহাজটির সর্বশেষ অবস্থান রেকর্ড করা হয় ২০০৯ সালে, তাইওয়ান উপকূলে। নয় বছর পর ইয়াঙ্গুনের কাছে এর খোঁজ মিলল।

ইয়াঙ্গুনের কাছে আটকা পড়া ‘স্যাম রাতুলাঙ্গি পিবি ১৬০০’-কে এখনো ‘কাজ চালানোর মত সচল’ জাহাজ হিসেবে অ্যাখ্যা দিয়েছেন মায়ানমারের নাবিকদের স্বতন্ত্র একটি ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক অং কিয়াও লিন।

Advertisement ---
---
-----