গোরুকে এই খাবার খাওয়ালেই নাকি কমবে গ্লোবাল ওয়ার্মিং

নয়াদিল্লি: গ্লোবাল ওয়ার্মিং থেকে বাঁচতে বড়সড় ভূমিকা নিতে পারে ভারত। আরও স্পষ্টভাবে বলতে গেলে, ভারতের গোরু এই ভূমিকা নিতে পারে। এক গবেষণায় এমনটাই দাবি করেছেন মার্কিন বিজ্ঞানীরা। বিশ্বের মধ্যে সবথেকে বেশি পরিমাণ গোরু রয়েছে ভারতেই। আর তাদের এক বিশেষ ধরনের খাবার খাওয়ালে নাকি তারা মিথেন নিঃসরণ কম করে দূষণ কমিয়ে ফেলতে পারে একধাক্কায় অনেকটাই। এভাবেই বাতাস থেকে কার্ব-ডাই-অক্সাইড সরিয়ে ফেলতে পারে ভারত।

গ্লোবাল ওয়ার্মিং বা বিশ্ব উষ্ণায়নের জন্য কার্বন-ডাই-অক্সাইডের থেকে ২৮ গুন বেশি শক্তিশালী এই মিথেন। এটি একটি ক্ষতিকর গ্রিন হাউস গ্যাস। আর ভারতের বাতাসে যে পরিমাণ গ্রিন হাউস গ্যাস নির্গত হয়, তার আট ভাগের এক ভাগ আসে গবাদিপশু থেকে। সাধারণত গোরুকে ঘাস খেতে দেওয়া হয়, আর সেই খাবার থেকেই গোরুর শরীর থেকে নির্গত হয় মিথেন গ্যাস। সম্প্রতি, ইউনিভার্সিটি অফ ক্যালিফোর্নিয়ার ডিপার্টমেন্ট অফ অ্যানিম্যাল সায়েন্সে একটি গবেষণা হয় বিজ্ঞানী এরমিয়াস কেবরিয়াবের নেতৃত্বে।

সেই গবেষণাতেই উঠে এসেছে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য। দেখা যাচ্ছে ঘাসের বদেল গোরুকে যদি সমুদ্র শৈবাল শুকিয়ে খাওয়ানো হয়, তাহলে গোরু সেটা খেতেও পছন্দ করে আর তাতে গোরুর মিথেন গ্যাস নিঃসরণও কমে যায়। তিন মাসের পরীক্ষায় দেখা গিয়েছে গোরু ৫৮ শতাংশ কম মিথেন গ্যাস নিঃসরণ করছে। এইভাবে বায়ুদূষণ আর গ্লোবাল ওয়ার্মিং কমানো সম্ভব বলে জানাচ্ছেন বিজ্ঞানীরা।

- Advertisement -

হিসেব বলছে ২০১৫ তে ভারতে ২৫ লক্ষ মানুষের মৃত্যু হয়েছে বায়ুদূষণের কারণে। এছাড়া দূষণের জেরে অ্যালঝাইমার বা ডিমেনশিয়ার মত রোগও চেপে ধরতে পারে। তাই ভারতের এখনই সচেতন হয়ে যাওয়া উচিৎ বলে মনে করছেন বিজ্ঞানীরা।

Advertisement ---
---
-----