বাল্মীকির সঙ্গে হিসবে মিলিয়ে দিল Google! পরীক্ষা করেই দেখুন

রামায়ণ কিংবা মহাভারতের কাহিনীর সঙ্গে অনেক সময়েই বাস্তবের মিল খোঁজা হয় বটে। তবে, সেসব নিছকই কল্পকথা বলে উড়িয়ে দেন অনেকে। সেসব নিয়ে বিতর্ক হয়ত থেকেই যাবে। তবে এযুগেও রামায়ণের সঙ্গে বাস্তবের মিল পাওয়া গেলে, তা নিছকই কাকতালীয় ভেবে নেওয়া যায়। তাই বলে দিন-ক্ষণের হিসেব মিলে যাওয়াটা সত্যিক অবাক করার মত।

রামায়ণের কাহিনী অনুযায়ী, দশেরার দিন রাবণ বধ করেছিলেন রাম। তারপর ফিরে আসেন অযোধ্যায়। তাঁর সেই ফিরে আসাত দিনটই দিওয়ালি হিসেবে পালিত হয় দেশ জুড়ে। আর হিসেব করতে দেখা যায়, দশেরা আর দিওয়ালির মধ্যে ২০ দিনের তফাৎ। কিন্তু ২০ দিনে কীভাবে ফিরে এসেছিলেন রাম। লঙ্কা অর্থাৎ বর্তমান শ্রীলঙ্কা থেকে আজকের অযোধ্যার দূরত্ব ৩০০০ কিমিরও বেশি। অনেকেই এই দূরত্ব নিয়ে অনেক হিসেব-নিকেশ করেছেন। পুষ্প রথে এসেছিলেন নাকি পায়ে হেঁটে, সে বিতর্কও রয়ে গিয়েছে।

এবার এই প্রশ্নেরও উত্তর দিচ্ছে গুগল। দশেরার আর দিওয়ালির পাজল মেলাতে না পেরে কেউ বা কারা বোধহয় উত্তর খুঁজেছিলেন গুগলে। আর সেখানেও ত্রাতার ভূমিকায় গুগল। আর গুগল যা উত্তর দিচ্ছে, তা দেখলে অবাক হতে হয় বৈকি! বাল্মীকির হিসেবে একেবারে ঠিক। গুগল ম্যাপ বলছে, রামায়ণের হিসেবই ঠিক। শ্রীলঙ্কা থেকে অযোধ্যা আসতে পায়ে হেঁট দিন কুড়িই সময় লাগে।

বিশ্বাস না হলে, যে কেউ পরীক্ষা করে দেখতে পারেন।

গুগল ম্যাপে গিয়ে সার্চ করতে হবে শ্রীলঙ্কা থেকে অযোধ্যা। দূরত্ব দেখাবে ৩১৫২ কিলোমিটার। এবার ট্রান্সপোর্টের মোডটা চেঞ্জ করে দিন। গুগল বলবে, পায়ে হেঁটে সময় লাগবে ২০ দিন ১৫ ঘণ্টা। অর্থাৎ কয়েক মোটামুটি মিলেই যাচ্ছে হিসেবটা।

তবে, কেউ তো একটানা হেঁটে যাবেন না। তাই বিতর্কটা থেকেই যাচ্ছে।

----
-----