নয়াদিল্লি: এবার থেকে প্যানিক বাটন লাগাতে হবে বাস, ট্যাক্সি ও সরকারি পরিবহণের জন্য ব্যবহার করা যেকোনও গাড়িতেই৷ রাখতে হবে জিপিএস-ও৷ পয়লা এপ্রিল থেকে এই ব্যবস্থা গাড়িগুলিতে রাখার নির্দেশিকা জারি করেছে কেন্দ্র৷

সড়ক পরিবহণ মন্ত্রক একটি টুইটের মাধ্যমে জানিয়েছে, যে সব রাজ্য এখনও এ নিয়ে কোনও পদক্ষেপ নেয়নি, তাদের দ্রুত এই দুটি সুবিধা রাখার ব্যাপারে উদ্যোগ নিতে হবে৷ মূলত যাত্রীসুরক্ষার কথা ভেবেই এই ব্যবস্থা রাখতে বলা হয়েছে।

Advertisement

যাত্রী কোনও সমস্যা বা বিপদে পড়লে, এই বোতাম টিপেই সরাসরি পুলিশের সাথে যোগাযোগ করতে পারবে৷ যোগাযোগ করতে পারবে পরিবহণ দফতরের সাথেও৷ সেই সংকট মূহুর্তে পুলিশ ও পরিবহন মন্ত্রকের আধিকারিকরা জিপিএস-এর মাধ্যমে সেই গাড়িটিকে সহজেই খুঁজে নেবেন৷

তিন চাকার অটো বা টোটোর মতো গাড়িতে অবশ্য এই জিপিএস ও প্যানিক বাটন থাকছে না। মন্ত্রকের বক্তব্য— যেহেতু এই গাড়িগুলির দু’দিক বা তিন দিক খোলা, সেহেতু যাত্রীরা বিপদে পড়লে সহজেই তাঁরা দৃষ্টি আকর্ষণ করতে পারবেন বাইরের লোকের।

মন্ত্রকের তরফে এরআগে বলা হয়, ২৩ আসনের বেশি বাসে সিসিটিভি ক্যামেরা বসাতে হবে। কিন্তু সেই প্রস্তাবের বাস্তবায়ন হচ্ছে না৷ কেন্দ্রীয় সরকারের এই নির্দেশিকার পালনের দায়িত্ব অবশ্য রাজ্য পরিবহণ দফতরগুলির উপর বর্তায়। কারণ, শুধু প্যানিক বাটন বা জিপিএস বসালেই কাজ শেষ হয়ে যাবে না। পরিবহণ দফতর ও পুলিশের উপরে থাকবে নজরদারির দায়িত্ব৷

----
--