কলকাতাঃ  গ্রুপ ডি কর্মী নিয়োগ পক্রিয়া নিয়ে মামলা কলকাতা হাইকোর্টে। মূলত আইনি প্রশ্নগুলি তোলা হয়েছে এই মামলায়। এক দফায় এই সংক্রান্ত মামলার শুনানি হয়েছে। শুনানিতে বিচারপতি অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, এমন নিয়োগ সম্পর্কিত প্রাসঙ্গিক আইন ও অন্যান্য নথি ১২ ডিসেম্বর হাইকোর্ট প্রশাসনকে পেশ করতে হবে। অন্যদিকে, এই মামলার ফলাফলের উপর ওই নিয়োগ প্রক্রিয়ার ভবিষ্যৎ নির্ভর করবে।

গত ২৮ সেপ্টেম্বর গ্রুপ ডি পদে নিয়োগের বিজ্ঞাপন প্রকাশ করা হয়। বর্তমান ও সম্ভাব্য মোট শূন্যপদের সংখ্যা ২২১ ধরে বিজ্ঞাপনটি দেওয়া হয়। এই নিয়োগ প্রক্রিয়াকে চ্যালেঞ্জ করে মামলাকারী রিয়া দাশের আইনজীবী সৌমেন দত্ত বাংলা এক সংবাদমাধ্যমের কাছে অভিযোগ করেন, ১৯৭৬ সালের রাজ্য সংরক্ষণ আইন লঙ্ঘন করে তফসিলি জাতি ও উপজাতীয় প্রার্থীদের থেকে পরীক্ষার ফি নেওয়া হয়েছে। স্নাতকরা প্রার্থী হতে পারবেন না বলে জানানো হয়েছে। ইন্টারভিউর জন্য কত নম্বর থাকবে, তা জানানো হয়নি।

জাতীয় স্তরে গুরুত্বপূর্ণ দু’টি সংবাদপত্রে (যার একটি স্থানীয় ভাষার) বিজ্ঞাপনটি প্রকাশিত হয়নি। নিয়োগ প্রক্রিয়া চলাকালীন ২০০৫ সালের তথ্য জানার আইন কার্যকর হবে না বলে জানানো হয়েছে। তাছাড়া গ্রুপ-ডি কর্মী নিয়োগের জন্য কোনও হাইকোর্ট বিধিই নেই। এই সংক্রান্ত বেশ কিছু নথিও প্রকাশ করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

--
----
--