ভাইরাল VDO! মদ খেয়ে রাস্তার মাঝে দেদার নাচ পুলিশের

গুরুগ্রাম: মদ খেয়ে রাস্তার মাঝে নাচ শুরু করল পুলিশ৷ সেই দেখতে ভীড় জমে গেল রাস্তায়৷ শুরু হল তীব্র যানজট৷ শুধু নাচই নয়, রাস্তার ঠিক মাঝখানে গাড়ি দাঁড় করিয়ে রেখে বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়লেন ওই কর্মী৷

উচ্চপদস্থ ওই আধিকারিক গুরুগ্রামে রবিবার রাতে এই কান্ড ঘটিয়েছেন৷ গাড়ির মিউজিক সিস্টেম জোরে বাজিয়ে নাচ শুরু করেন তিনি৷ প্রথমে তাঁকে আটকাতে যাওয়া হলে, রীতিমতো বাধা পান অন্যান্যরা৷ কারোর কথাই শোনেননি তিনি৷

রবিবার গভীর রাতে গুরুগ্রামের শীতলা মাতা রোডে এই ঘটনা ঘটে৷ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গেলে সাধারণ মানুষকেই রাস্তায় নামতে হয়৷ অনেকেই চেষ্টা করেন ওই মদ্যপ পুলিশ আধিকারিককে শান্ত করার৷ কিন্তু কোনও লাভ হয়নি৷ ওই মদ্যপের তাণ্ডব চলতেই থাকে রাস্তা জুড়ে৷ একের পর এক দাঁড়িয়ে যায় গাড়ি৷ তীব্র যানজটের মুখে পড়েন যাত্রীরা৷

- Advertisement -

গুরুগ্রাম পুলিশ স্টেশনে গোটা বিষয়টি জানানো হয়৷ অভিযোগও দায়ের করতে যান বেশ কয়েকজন যাত্রী৷ সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় গুরুগ্রাম থানার পুলিশ৷ তাঁরাও ওই পুলিশ আধিকারিককে রাস্তা থেকে গাড়ি সরিয়ে নিতে নির্দেশ দেয়৷ ওই আধিকারিককে শান্ত হতে বলে৷ তবে লাভ হয়নি৷ পুলিশের নির্দেশ সত্ত্বেও ওই মদ্যপ ব্যক্তি নিজের কাজকর্ম চালিয়ে যেতে থাকেন৷ এমনকি ঘটনাস্থলে উপস্থিত অন্যান্য পুলিশ আধিকারিকদের সঙ্গে দুর্বব্যহারও করেন৷

এরপর কিছুটা জোর করেই ওই মদ্যপ আধিকারিককে পুলিশের জিপে তোলা হয়৷ অন্য একজন পুলিশ কর্মী তার গাড়িটিকে রাস্তার ধারে সরিয়ে নিয়ে যান৷ ওই মদ্যপ পুলিশ আধিকারিকের সঙ্গে একজন সঙ্গীও ছিল৷ তিনিও মদ্যপ অবস্থায় ছিলেন বলে খবর৷ তাদের দুজনকেই সেক্টর ফাইভ থানায় নিয়ে যাওয়া হয়৷
ওই মদ্যপ আধিকারিকের নাম জানা গিয়েছে৷ এক জাতীয় সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী তরুণ দাহিয়া নামের ওই আধিকারিক নুহের অপরাধ দমন শাখার ইন্সপেক্টর৷ প্রথমে এই খবরটি ধামা চাপা দিতে চায় গুরুগ্রাম থানার পুলিশ৷ তারা কোনও লিখিত অভিযোগ দায়ের করতে চায়নি৷ পরে স্থানীয়দের চাপে লিখিত অভিযোগ নেয় তাঁরা৷ গোটা বিষয়টি জানানো হয় নুহের পুলিশ সুপার নাজনিন ভাসিনকে৷

Advertisement
---