১৯ দিন পর আমরণ অনশন তুলে নিলেন হার্দিক

গান্ধীনগর: পাতিদার সংরক্ষণ ও কৃষি ঋণ মকুবের দাবিতে অনির্দিষ্টকালের জন্য অনশন শুরু করেছিলেন হার্দিক প্যাটেল৷ জানিয়েছিলেন গুজরাত সরকার তাঁর দাবি না মেনে নেওয়া পর্যন্ত অনশন চালিয়ে যাবেন৷ কিন্তু বুধবার ১৯দিনের মাথায় সেই অনশন প্রত্যাহার করে নেন তিনি৷ দুই পাতিদার নেতার অনুরোধেই হার্দিকের অনশন তুলে নেওয়ার ঘোষণা৷ এ দিন দুই পাতিদার নেতার হাতে জল খেয়ে অনশন ভঙ্গ করেন তিনি৷

আরও পড়ুন: সোশ্যাল মিডিয়ায় গুজব রুখতে কোমর কষে নামছেন প্রধানমন্ত্রী

- Advertisement -

অনশন তুলে নিলেও হার্দিকের ঘোষণা, পাতিদার সম্প্রদায়ের জন্য সংরক্ষণের দাবি ও কৃষি ঋণ মকুবের লড়াই এখানেই শেষ নয়৷ এই লড়াই জারি থাকবে৷ যদিও এই ১৯ দিনে সরকারের সঙ্গে হার্দিকের দাবি নিয়ে পাতিদার নেতাদের কোনও আলোচনা হয়নি৷ এই ১৯দিনে অনশনের জেরে হার্দিকের স্বাস্থ্য অনেকটাই অবনতি হয়৷ ১৫ কেজি ওজন কমে যায় তাঁর৷ হার্দিকের স্বাস্থ্য নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন পাতিদার নেতারা৷ তারাই হার্দিককে বুঝিয়ে অনশন তুলে নিতে বলেন৷ বুধবার বেলা তিনটে নাগাদ জল খেয়ে অনশন ভাঙেন তিনি৷

আরও পড়ুন: এই খাবার কুকুরও খাবে না, বিমানের পরিষেবা নিয়ে ক্ষোভ রাষ্ট্রপতির

গত ২৫ অগস্ট আহমেদাবাদে আমৃত্যু অনশনের কথা ঘোষণা করেন পাতিদার আন্দোলন নেতা হার্দিক প্যাটেল৷ ওই দিন থেকে শুরু করেন অনশন৷ প্রথমে কৃষি ঋণ মকুব ও পাতিদার সম্প্রদায়ের জন্য সংরক্ষণের দাবিতে অনশন শুরু হলেও পরে এর সঙ্গে যুক্ত হয় অল্পেশ কাঠেরিয়ার মুক্তির দাবি৷ হার্দিক ঘনিষ্ঠ অল্পেশকে দেশদ্রোহিতার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়৷ ২৫ বছর বয়সী হার্দিক প্যাটেল অনশনের ১৪দিনের মাথায় হাসপাতালে ভরতি হন৷ শ্বাসকষ্ট ও কিডনি সমস্যার জেরে দু’দিন হাসপাতালে ছিলেন তিনি৷ পরে হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়ে আহমেদাবাদের বাড়ি ফিরে আসেন৷ বাড়ি ফিরে এসেও অনশন চালিয়ে যান৷

Advertisement ---
---
-----