পতিদার আন্দোলনের নেতা হার্দিক প্যাটেলের ২ বছরের জেল

মেহসানা: ২০১৫ সালে বিজেপি বিধায়ক রুশিকেশ প্যাটেলের দলীয় কার্যালয় ভাঙচুরের ঘটনার অন্যতম অভিযুক্ত হার্দিক প্যাটেলকে সাজা শোনাল আদালত৷ বুধবার পতিদার আন্দোলনের নেতা হার্দিককে সাজা শোনায় গুজরাটের ভিসনগর আদালত৷

আরও পড়ুন- বিপুল পরিমাণ মাদক সহ মালদহে গ্রেফতার যুবক

এই ঘটনায় অভিযুক্ত থাকার অপরাধে হার্দিককে ২ বছরের কারাদণ্ডের নির্দেশ দিয়েছে আদালত৷ তার সঙ্গে ৫০ হাজার টাকা জরিমানও করা হয়েছে৷ পতিদার আনামত আন্দোলন সমিতি বা পিএএএসের প্রধান হার্দিক প্যাটেল৷ তাঁর বিরুদ্ধে বিজেপি বিধায়কের অফিস ভাঙচুরের অভিযোগ রয়েছে৷

- Advertisement -

হার্দিকের সঙ্গে সাজা শোনানো হয়েছে সর্দার প্যারেল গ্রুপের আহ্বায়ক লালজি প্যাটেল, ও পতিদার আন্দোলনের আরেক নেতা অম্বালাল প্যাটেলকে৷ এদের প্রত্যেকেরই ২ বছরের জেল ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা হয়েছে৷

আরও পড়ুন- মারাঠা সংরক্ষণের দাবিতে আন্দোলনে উত্তাল মহারাষ্ট্র

তিনজনের বিরুদ্ধে ১৪৭, ১৪৮, ১৪৯, ৪২৭ ও ৪৩৫ ধারায় মামলা করা হয়েছে৷ ২০১৫–য় পতিদার অনামত সমিতির মিছিল চলাকালীন হার্দিকের নেতৃত্বে বিজেপি বিধায়ক হৃষিকেশ প্যাটেলের কার্যালয়ে ভাঙচুর চালায় অনেকে। ২০১৬–য় ওই একই বিধায়কের গাড়ি লক্ষ্য করে পাথর ছোঁড়ে হার্দিকের দলবল। এই দুটি ঘটনার প্রেক্ষিতে হার্দিক ও অন্য সহকারীদের বিরুদ্ধে বিশনগর পুলিশের কাছে অভিযোগ করা হয়। গতবছর অক্টোবর মাসে হার্দিক ও লালজি প্যাটেলের নামে গ্রেফতারি পরোয়ানা বের করে বিশনগর আদালত।

জামিন অযোগ্য ধারায় মামলা করা হয় হার্দিক প্যাটেলের বিরুদ্ধে৷ তাঁর সঙ্গে লালজী প্যাটেল ও অন্যান্য পাতিদার দলের অন্যান্য কয়েকজন নেতার বিরুদ্ধেও মামলা রুজু হয়৷ গুজরাটের মেহেসানা জেলার অন্তর্গত ভিসনগর আদালতে মামলা রুজু হয় তাঁদের বিরুদ্ধে। সেই সময় ভিসনগর ছিল পাতিদার সংরক্ষণ আন্দোলনের কেন্দ্রবিন্দু। হার্দিক ছাড়াও এই মামলায় অভিযুক্ত ছিল মোট ১৭ জন।

Advertisement
---