‘ট্যাঙ্ক তৈরি করে নোংরা জল রাখতে হচ্ছে…’

স্টাফ রিপোর্টার, মালদহ: দশক পার হলেও দৈনন্দিন সমস্যা মেটেনি। বেহাল অবস্থায় দিন কাটাচ্ছেন বাসিন্দারা। নিকাশি ব্যবস্থা একেবারে ভেঙে পড়েছে। বাধ্য হয়েই এলাকাবাসীরা বাড়িতেই ট্যাংক তৈরি করে নোংরা জল রাখছেন। দেখতে দেখতে আবার একটি ভোট আসতে চলেছে, তাই এবারে ভোটের শক্ত হাতে ময়দানে নামতে চলেছেন স্থানীয়রা।

মালদহ জেলার মহকুমা শহর চাঁচল৷ মহকুমা, অফিস-আদালত, ব্লক, অফিস, স্কুল, কলেজ সব থাকলেও এলাকাবাসীদের দৈনন্দিন সমস্যা মেটেনি আজও। প্রচণ্ড কষ্টের মধ্যেই বসবাস করছেন চাঁচলের বাসিন্দারা। চাঁচল থানা পাড়া এলাকার বাসিন্দা পপি দে জানান, ‘আমাদের জলের ব্যবস্থা নেই। বর্ষার সময় ঘরে জল ঢুকে যায়। ভোট আসতেই নেতারা বলেন, ভোটে জিতলেই কাজ হয়ে যাবে, কিন্তু নেতাদের প্রতিশ্রুতি ভোটের পর আর থাকে না। দীর্ঘ ১২ বছর ধরে এই সমস্যায় জর্জরিত’৷

- Advertisement -

এলাকাবাসী শুভেন্দু কুমার সরকার জানান, ‘নিকাশি ব্যবস্থা চাঁচলে খুবই খারাপ। মূল যে ড্রেনেজ তা বন্ধ করে বেআইনিভাবে দোকানঘর গড়ে উঠেছে। দেখভাল করার কেউ নেই। খুব দ্রুত এই নিকাশি ব্যবস্থার সমাধান হোক। অবিলম্বে চাঁচলকে পুরসভার আওতায় আনা হোক’৷

এই বিষয়ে চাঁচল গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান উৎপল তালুকদার জানান, ‘সত্যি চাঁচলে নিকাশি ব্যবস্থার সমস্যা আছে। বন্যার সময় জল কিছু এলাকায় জমে থাকছে, তবে সব জায়গায় নয়। আমরা চেষ্টা করছি যাতে এই বেহাল নিকাশি ব্যবস্থার দ্রুত সমাধান করা যায়।’

চাঁচল মহকুমাশাসক সব্যসাচী রায় জানান, ‘আমি খুব নতুন এখানে। তবে আমার বিষয়টি মাথায় রয়েছে। আমরা খুব দ্রুত এই বিষয়ে সবাই একসাথে কাজে নেমে নিকাশি ব্যবস্থাটি কোথায় আটকে রয়েছে তা খুঁজে বের করব। এই জলগুলি যাতে ঠিকঠাকভাবে নিকাশি হতে পারে সে বিষয়ে আমরা নজর দিয়ে দেখব। খুব দ্রুত একটি টিম এ বিষয়ে সার্ভে করে দেখবে।’