গণনাকেন্দ্রে ছাপ্পা দিয়েও হারল তৃণমূল

কৃষ্ণনগর: পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতা দখলের লড়াইয়ে নজির গড়েছিল নদীয়ার এক যুবক। ভোটকেন্দ্রে নয়, ইতিহাস সৃষ্টি করে সে ছাপ্পা ভোট দিয়েছিল গণনাকেন্দ্রে। নদিয়া জেলায় কৃষ্ঞগঞ্জ এলাকার সেই কেন্দ্রে স্থানীয় তৃণমূল প্রার্থী পরাজিত হন এক নির্দল প্রার্থী দ্বারা৷

বৃহস্পতিবার, ভোট গনণার দিন ব্যালেট পেপারে স্ট্যাম্প মারার অভিযোগ ওঠে গোলাপি শার্ট পরিহিত এক ব্যাক্তির বিরুদ্ধে৷ বেআইনিভাবে স্ট্যাম্প মারার সময় তিনি ক্যামেরাবন্দী হন৷ ইতিমধ্যেই ভিডিওটি ভাইরাল হয়ে গিয়েছে৷

পুরো ঘটনাটিকে অস্বীকার করেছেন তৃণমূল কর্তৃপক্ষ৷ তবে, রাজ্যের নির্বাচন কমিশন বিষয়টির উপর গুরুত্ব আরোপ করেন৷ একটি কেস নথিভুক্ত করা হয়েছে ইতিমধ্যেই৷ আপাতত ভোট গনণা পদ্ধতিকে স্থগিত করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে৷ ঘটনার অভিযুক্ত দুজন ব্যাক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে৷

- Advertisement -

তবে, ক্যামেরাকাণ্ডে মূল অভিযুক্ত এখনও অধরা৷ অন্যদিকে, শুক্রবার সকালে বিজয়ী হয়ে বাড়ি ফেরেন নির্দল প্রার্থী নিলাদ্রী সুকুল৷ তিনি বলেন, অনেক চেষ্টা করা হয়েছিল আমাকে হারানোর৷ কিন্তু, দুর্ভাগ্যবশত সেটা সম্ভব হয়নি৷ সত্যের জয় হয়েছে৷ আমি ন্যায়বিচার পেয়েছি এবং এর জন্য আমি ভীষণ খুশি৷

বৃহস্পতিবার সকালে মাঝদিয়া সুধীর রঞ্জন কলেজে ভোটগনণা চলাকালীন কেন্দ্রের বাইরে অনবরত বোমাবর্ষণ চলতে থাকে৷ সেই সময়ই গোলাপি পোশাক পরিহিত এক ব্যাক্তি ব্যালেট বক্স থেকে কাগজ বের করে সেগুলিতে ছাপ মারতে শুরু করে৷

নিলাদ্রী সুকুল ঘটনাটি বুঝতে পারলেও তাকে গনণাকেন্দ্র থেকে বের করে দেওয়া হয়৷ শিবনিবাস গ্রাম পঞ্চায়েত যেখানে তিনি একটি আসন জেতেন৷ মোট ১৩ টি আসনের মধ্যে ৭ টি আসনে জয়ী হয়েছে তৃণমূল, বিজেপী জিতেছে ৫ টি আসন৷ সুকুল নির্দল প্রার্থী হিসেবে মনোনীত হন এবং অবিশ্বাস্যভাবে জয়লাভ করেন৷

Advertisement ---
-----