নারদাকর্তার নারকো পরীক্ষার সম্ভাবনা

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: বিহারের সাংসদকে হুমকি দিয়ে তোলাবাজি মামলার সত্যতা যাচাই করতে নারকো পরীক্ষা সম্ভব কিনা জানতে চাইল কলকাতা হাইকোর্ট৷ বুধবার হাইকোর্টে এই সংক্রান্ত একটি মামলার শুনানিতে হাইকোর্ট জানিয়েছে, আগামী ৯ নভেম্বর কলকাতা পুলিশ এবং ম্যাথু স্যামুয়েল, দু’পক্ষকেই জানাতে হবে তারা নারকো পরীক্ষা করতে রাজি কিনা৷ পাশাপাশি তোলাবাজি মামলার কেস ডায়েরির সারাংশও হাইকোর্টে জমা দিতে বলা হয়েছে৷

এই তোলাবাজি মামলায় নারদাকর্তা ম্যাথু স্যামুয়েল গত সপ্তাহে কলকাতা পুলিশের বিরুদ্ধে হেনস্থার অভিযোগ তুলে হাইকোর্টে মামলা করেছিলেন৷ সেই মামলার শুনানিতেই আদালত এই আদেশ দিয়েছে৷ ম্যাথুর অভিযোগ ছিল, একই মামলার বারবার তলব করে তাঁকে হেনস্থা করছে পুলিশ৷ তদন্তের মূল বিষয় থেকে সরে গিয়ে তাঁকে নারদা স্টিং অপারেশন সংক্রান্ত বিষয়ে প্রশ্ন করছে পুলিশ৷ ম্যাথুর অভিযোগ, যেহেতু তিনি নারদা স্টিং অপারেশন করে শাসকদলের নেতাদের মুখোশ খুলে দিয়েছিলেন, তাই পুলিশ একটি সাজানো মামলায় তাঁকে হেনস্থা করছে৷

বিভিন্ন সাড়া জাগানো মামলায় অভিযুক্তকে চিহ্নিত করতে পারলেও তাঁর বিরুদ্ধে তথ্যপ্রমাণের অভাব থাকলে নারকো পরীক্ষা করে মূল ঘটনা জানার চেষ্টা করে পুলিশ৷ যার নারকো পরীক্ষা করা হয় তার শরীরে একটি ওষুধ প্রয়োগ করে তাঁকে ঘোরে পাঠিয়ে দেওয়া হয়৷ তারপর তাঁকে বিভিন্ন প্রশ্ন করে সত্য জানার চেষ্টা করা হয়৷ সূত্রের খবর, এক্ষেত্রে ম্যাথুও তাঁর নারকো টেস্ট করার আবেদন জানিয়েছিলেন৷ পুলিশও আলাদাভাবে একই আবেদন করে৷ তাই দু’পক্ষ সহমত দেখেই হাইকোর্ট এ ব্যাপারে তাদের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাতে বলেছে৷

- Advertisement -

পুলিশের দাবি, ম্যাথু এই মামলায় সত্য লোকাচ্ছেন৷ তাঁদের বক্তব্য, মুচিপাড়া এলাকার হোটেল থেকে যে নম্বর ব্যবহার করে বিহারের সাংসদকে হুমকি ফোন করা হয়েছিল৷ সেই নম্বর থেকেই ম্যাথুর সঙ্গে দু’বার যোগাযোগ হয়েছিল৷ সেজন্যই ম্যাথুর থেকে দু’টি ফোন চাওয়া হয়েছে৷ কিন্তু ম্যাথু সেই ফোন দু’টি এখনও মুচিপাড়া থানায় জমা দেননি৷ তার সপক্ষে বিশ্বাসযোগ্য কোনও তথ্য দিতে পারেননি৷ তাই পুলিশ মনে করছে, ম্যাথু সত্য গোপন করছেন৷ সত্য উদঘাটনের জন্যই নারকো টেস্ট হাতিয়ার হতে পারে৷ অন্যদিকে, ম্যাথুর দাবি, পুলিশ একটি ঘটনাকে ভালমতো সাজিয়ে তাঁকে ফাসাতে চাইছে৷ তার থেকে নারদা স্টিং অপারেশন সংক্রান্ত তথ্য উগরাতে চাইছে৷

Advertisement ---
-----