পাথরপ্রতিমা, ঢোলাহাটে কড়া নিরাপত্তার বেষ্টনী

প্রতীকী ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, বারুইপুর: সিংহভাগই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় জয় করে নিয়েছে শাসকদল। ভোট হচ্ছে জেলার মাত্র চার হাজার বুথে। তবে সেখানে নিরাপত্তার কোনও খামতি রাখতে চায় না প্রশাসন। দক্ষিণ ২৪ পরগনায় নির্বিঘ্নে ভোট করাতে রবিবার থেকেই প্রস্তুত বিরাট পুলিশবাহিনী।

এই জেলায় মূলত কলকাতা পুলিশের কর্মীরা নিরাপত্তার দায়িত্বে আছেন। গ্রামপঞ্চায়েতের মোট আসন এখানে ৪৮৮৩টি। এরমধ্যে ১৪৮২টি আসনে কোন বিরোধী প্রার্থী নেই। ভোট হচ্ছে ৩৪০১টি আসনে। পঞ্চায়েত সমিতির মোট আসন ৯১৩টি। এরমধ্যে ২৭৯টি আসনে বিরোধী দলের কোনও প্রার্থী নেই। ভোট হবে ৬৩৪টি আসনে। জেলা পরিষদের মোট আসন ৮১টি। ২৩টি আসনে বিরোধী প্রার্থী নেই। ভোট হচ্ছে ৫৮টিতে।

জেলার সুন্দরবন ও বারুইপুর পুলিশ জেলার অধিকাংশ আসনে ভোট হচ্ছে। সঙ্গে ডায়মন্ডহারবার পুলিস জেলার মগরাহাট-‌১, ২ ব্লকে ভোট হচ্ছে। তবে এই ব্লকের বহু বুথই স্পর্শকাতর। তাই সেসব দিক মাথায় রেখেই সাজানো হয়েছে নিরাপত্তা ব্যবস্থাকে।

- Advertisement -

জেলা পুলিশের পাশাপাশি কলকাতা পুলিশের একটা বড় দল সুন্দরবন পুলিশ জেলার নিরাপত্তার দায়িত্বে। বিশেষ করে মন্দিরবাজার, মথুরাপুর-‌১ ও ২ ব্লক, পাথরপ্রতিমা, কুলপি, ঢোলাহাট। জায়গাগুলি ভোটের আগে থেকেই সরগরম। সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটেছে দফায় দফায়। ভোটের জন্য আগাম প্রস্তুত প্রশাসন। প্রতিটি বুথে সশস্ত্র পুলিশ তো থাকছেই।

ডায়মন্ড হারবার ও সুন্দরবন পুলিশ জেলাতে মোট ৬ হাজার পুলিশকর্মী নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকবে। প্রশাসনসূত্রে খবর, এই জেলার সুন্দরবনের প্রত্যন্ত দ্বীপগুলিতে শনিবার থেকে ভোটকর্মীরা যেতে শুরু করেছেন। রবিবারের মধ্যে পৌঁছে গিয়েছেন একশো শতাংশ ভোটকর্মীই।

Advertisement
---