নয়া দিল্লি: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সর্বোচ্চ সম্মান পেতে চলেছেন দেশের জাতির জনক৷ মহাত্মা গান্ধিকে মরোনত্তর সর্বোচ নাগরিক সম্মান দেওয়ার ঘোষণা করল আমেরিকা৷ তখন নিউইয়র্কের রাস্তায় ‘ইন্ডিয়া ডে’প্যারাড, তেরঙায় মোড়া নিউইয়র্ক৷ সেদিনই মহাত্মা গান্ধিকে বিশেষ সম্মান প্রদানের ঘোষণা করেন মার্কিন মহিলা কংগ্রেস সাংসদ কারোলিন বি মালোনি৷ ‘কংগ্রেসানাল গোল্ড মেডেল’- মরোনত্তর সম্মানে সম্মানিত হবেন গান্ধি৷ যা আমেরিকার এক ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত বলে মনে করা হচ্ছে৷

মহাত্মা গান্ধির অহিংস সত্যাগ্রহ আন্দোলনই তাঁকে সর্বোচ্চ সম্মানে ভূষিত করছে বলে জানাচ্ছেন কারোলিন৷ তিনি বলেন,‘ ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাসে মহাত্মা গান্ধীর অহিংস আন্দোলন শুধু ভারতের কাছে নয়, গোটা পৃথিবীর কাছে অনুপ্রেরণার৷ সেই মহান ব্যক্তিত্বকে ও তাঁর কাজকে সম্মান জানাতেই এই মরণোত্তর মেডেল দেওয়া হবে মহাত্মাকে৷’ ২ অক্টোবর মহাত্মা গান্ধির ১৫০ তম জন্মদিনে মরোনত্তর গোল্ড মেডেল পাবেন জাতির জনক৷ নিউইয়র্কে ইন্ডিয়া ডে প্যারাডের পর বিশেষ অনুষ্ঠানে কারোলিন মহাত্মার সর্বোচ্চ সংম্মানের কথা ঘোষণা করেন৷ উপস্থিত ছিলেন মহাত্মা গান্ধীর বিশ্ববিদ্যালয় ইউসিএল থেকে নির্বাচিত প্রসূন শর্মা৷

Advertisement

মহাত্মার সম্মান সবসময়ই ভারতের কাছে গর্বের৷ প্রসূন শর্মা জানাচ্ছেন, মহাত্মার পথ ধরেই দেশের তরুণ প্রজন্মের এগিয়ে চলা উচিত৷ হিংসে নয় অহিংসাই হোক বিশ্বের দরবারে ভারতকে সম্মানিত করার একমাত্র পথ বলে মনে করেন তিনি৷ যা করিয়ে দেখেছিলেন মহাত্মা গান্ধি৷ মার্কিন প্রেসিডেন্টের দেওয়া ‘মেডেল অব ফ্রিডম’-এর মতই গুরুত্বপূর্ণ ‘কংগ্রেসানাল গোল্ড মেডেল’৷ যা আমেরিকার সর্বোচ্চ সম্মান৷

----
--