আক্রান্ত হিন্দুরা: দীর্ঘদিনের পুরানো শিব মন্দির ভাঙল দুস্কৃতিরা

ঢাকা:  বাংলাদেশে ফের আক্রান্ত সংখ্যালঘু হিন্দুরা। টাঙ্গাইলের নাগরপুরে মন্দির ভাঙচুর করে জমি দখল চেষ্টার অভিযোগ । উপজেলার কোকাদাইর এলাকায় চাঞ্চল্যকর এই ঘটনা ঘটেছে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে বাংলাদেশ পুলিশের বিশাল একটি টিম। ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে খবর, উপজেলার কোকাদাইর মৌজায় একটি শিবমন্দির নির্মাণ করে দীর্ঘদিন ধরে উপাসনা ও ধর্মীয় অনুষ্ঠান পালন করে আসছিলেন বাটরা গ্রামের চিত্ত রঞ্জন সূত্রধর। একই গ্রামের পরিমল চন্দ্র রায়ের নেতৃত্বে একটি দল শুক্রবার ওই শিবমন্দির ভাঙচুর করে চিত্ত রঞ্জনের পরিবারের লোকজনদের মারধর করে জমি দখলের চেষ্টা করে বলে অভিযোগ। অভিযোগের তির স্থানীয় দুস্কৃতিদের দিকে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌঁছলে তারা পালিয়ে যায়।

চিত্ত রঞ্জন সূত্রধর জানান, কোকাদাইর মৌজায় জমি কিনে সেখানে শিবমন্দির নির্মাণ করে দীর্ঘদিন যাবৎ ধর্মীয় কাজ সম্পাদন করে ভোগদখল করে আসছি। আমার প্রতিপক্ষ পরিমল চন্দ্র রায় দীর্ঘদিন আমাদের জায়গাজমি জবরদখলের চেষ্টা করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় পরিমল চন্দ্র রায় ৮-১০জনের একটি একটি বাহিনী নিয়ে আমার পরিবারের লোকজনকে মারপিট করে শিবমন্দির ভাঙচুর করে এবং আমাদের প্রাণনাশের হুমকি দেয় বলে অভিযোগ তাঁর। এই বিষয়ে তিনি আরও জানিয়েছেন,স্থানীয় থানা পুলিশের সহায়তা নিলে তারা পালিয়ে যায়। এ ব্যাপারে নাগরপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন বলেও জানিয়েছেন তিনি।

অভিযুক্ত পরিমল চন্দ্র রায়ের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করলে তাকে পাওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে নাগরপুর থানার ওসি আলম চাঁদ বলেন, উপজেলার বাটরা গ্রামের চিত্ত রঞ্জন সুত্রধরের বাড়ীতে শিবমন্দির ভাঙচুরের খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

----