বামেদের মতোই পতন হবে তৃণমূলের: বিজেপি নেতা

স্টাফ রিপোর্টার, চুঁচুড়া: রাজ্যে বামেদের দেখানো পথেই সন্ত্রাস করছে তৃণমূল কংগ্রেস। আর বামেদের মতোই তৃণমূলকেও ছুঁড়ে ফেলে দেবে রাজ্যের মানুষ। এমনই দাবি করলেন হুগলী জেলা বিজেপি সম্পাদক সুরেশ সাউ।

২০১১ সালে রাজ্যের ক্ষমতা দখল করে তৃণমূল কংগ্রেস। তার আগে দীর্ঘ ৩৪ বছর ধরে পশ্চিমবঙ্গ শাসন করেছে বামফ্রন্ট। সেই জামানায় শাসকের বিরুদ্ধে একগুচ্ছ অভিযোগ ছিল। সেই অপশাসন থেকেই মুক্তি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে রাজ্যের ক্ষমতা দখল করেছিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আরও পড়ুন- মুর্শিদাবাদে বিজেপি কর্মী খুন

শাসকের বদল হলেও রাজ্যে শাসনের কোন বদল হয়নি। এই অভিযোগ বিরোধীরা অনেকদিন ধরেই করে আসছে। সেই ক্ষোভের সুরই আরও একবার শোনা গিয়েছে হুগলী জেলা বিজেপি নেতৃত্বের মুখে।

ঘটনার সূত্রপাত, শনিবার রাতে বিজেপি-র এক মহিলা কর্মীর বাড়িতে হামলার ঘটনা ঘিরে। হুগলী জেলার কোদালিয়া ২ নং অঞ্চলের শ্যামাপল্লির বাসিন্দা পদ্ম শিবিরের ওই মহিলা কর্মীর নাম উর্মিলা রায়। গভীর রাতে তাঁর বাড়িতে একদল দুষ্কৃতি হামলা চালায়। টিভি সহ অন্যান্য সামগ্রী ভাঙচুর করা হয়। শুধু তাই নয়, বিজেপি নেত্রী উর্মিলা দেবীকে মারধোর করা হয় বলেও অভিযোগ।

আরও পড়ুন- রাজনীতি ছাড়তে চেয়ে ফেসবুক পোস্ট লালু পুত্রের

সমগ্র ঘটনার পিছনে স্থানীয় তৃণমূল কংগ্রেস নেতা প্রবীর দত্ত জড়িত বলে অভিযোগ করেছেন উর্মিলা রায়। প্রবীর রায়ের নেতৃত্বেই নাকি তাঁর বাড়িতে একাধিকবার হামলা চালানো হয়েছে। এই বিষয়ে চুঁচুড়া থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়। পুলিশ সেই অভিযোগকে এফআইআর হিসেবে গ্রহণ করে। কিন্তু, দীর্ঘ সময় পরেও অভিযুক্ত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি চুঁচুড়া থানার পুলিশ।

অভিযুক্তদের গ্রেফতারের প্রতিবাদে চুঁচুড়ায় মিছিল করে বিজেপি। যার নেতৃত্বে ছিলেন হুগলী জেলা বিজেপি সম্পাদক সুরেশ সাউ। মিছিল শেষে তিনি বলেন, “বামেরা যেভাবে সন্ত্রাস করেছিল ঠিক তেমনই করছে তৃণমূল। পঞ্চায়েত নির্বাচনের সময় থেকে সবাই সব দেখছে।” একই সঙ্গে রাজ্যের শাসকদলকে হুঁশিয়ারি দিয়ে তিনি বলেন, “তৃণমূল যা করছে সুদ সমেত তা ফিরিয়ে দেওয়া হবে। তৃণমূলকে মনে রাখতে হবে যে একদিন সিপিএম-কে মানুষ সরিয়ে দিয়েছিল।” ঠিক তেমনই তৃণমূল কংগ্রেসকে সরিয়ে বিজেপি-র নহাতে মানুষ ক্ষমতা তুলে দেবে বলে জানিয়েছেন সুরেশ বাবু।

আরও পড়ুন- মুর্শিদাবাদের বিজেপি কর্মী খুনের প্রতিবাদে ট্যুইট অমিত শাহের

একই সঙ্গে জেলা সম্পাদক সুরেশ সাউ আরও বলেছেন যে তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব বুঝে গিয়েছে যে মানুষ স্বতঃস্ফূর্ত ভোট দিলে জেতা সম্ভব নয়। পঞ্চায়েত নির্বাচনে তা খুব ভালো প্রমাণ মিলেছে। সেই কারণেই সন্ত্রাসের পথে হাঁটছে রাজ্যের শাসকদল। স্থানীয় বিজেপি নেতা রাজীব নাগ বলেছেন, “রাজ্যে উন্নয়নের জোয়ার বইছে বলে দাবি করে তৃণমূল। কিন্তু সেই জোয়ারের উপরে নিজেদেরই ভরসা নেই।” রাজ্য সরকার কেন্দ্রের প্রকল্প নিজেদের নামে চালাচ্ছে বলেও দাবি করেছেন রাজীব বাবু।

----
-----