স্টাফ রিপোর্টার, তমলুক: গত কয়েকদিন তাপমাত্রার পারদ অনেকটাই বেড়ে গিয়েছিল৷ হাওয়া অফিস থেকে জানানো হয়েছিল ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে৷ হাওয়া অফিসের দেওয়া রিপোর্ট অনুসারে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে আকাশের মুখ গোমরা হয়েছিল। জেলার বিভিন্ন প্রান্তে সন্ধ্যা থেকে হালকা বৃষ্টি ও বাতাস শুরু হয়েছিল।

সেই ঝড়-বৃষ্টির জেরে বাড়ি ভেঙে দেওয়াল চাপা পড়ে মৃত্যু হল এক মহিলার। ঘটনাটি ঘটেছে পাঁশকুড়া পুরসভার ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের রানিহাটি এলাকায়। পুলিশ জানিয়েছে মৃতের নাম রোজিনা বিবি (২৮)। বাড়ি পূর্ব মেদিনীপুরের চন্ডিপুর থানার নানকারচক গ্রামে। স্থানীয় ও পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, গত সোমবার নিজের দুই পুত্র সন্তানকে নিয়ে বাপের বাড়ি রানিহাটিতে বেড়াতে এসেছিলেন রোজিনা।

বৃহস্পতিবার রাতে ব্যাপক ঝড় বৃষ্টির কারণে মাটির বাড়ি পুরোপুরি ভেঙে পড়ে। সে সময় বাড়ির মধ্যেই ছিলেন রোজিনা ও তার দুই পুত্র সন্তান শেখ হাসিবুল ও শেখ রেজাবুল। এছাড়াও ছিলেন মা মমতাজ বিবি ও ভাই শেখ মইনুদ্দিন। ভাঙ্গা বাড়ির ভেতরে প্রত্যেকেই চাপা পড়ে যান।

পরে তাদের চিৎকারে স্থানীয় বাসিন্দারা ছুটে আসেন। আহতদের উদ্ধার করা হয়। কিন্তু বাঁচানো যায়নি রোজিনাকে। স্থানীয় চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে। আহতদের পাঁশকুড়া সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হয়।

স্থানীয় বাসিন্দা শেখ আইনুল ইসলাম জানান, বৃহস্পতিবার পৌনে আটটা নাগাদ ঝড় বৃষ্টি শুরু হয়। সে সময় দমকা হাওয়ায় কাঁচা বাড়িটি ভেঙে পড়ে। ঘরের ভিতরে তখন পাঁচজন ছিলেন। আমরা চিৎকার শুনে ছুটে এসে সবাইকে উদ্ধার করি। চারজনকে বাঁচাতে পারলেও একজন ঘটনা স্থানেই মারা যান। স্থানীয় চিকিৎসক তাকে চিকিৎসার পর মৃত বলে ঘোষণা করেন। শুক্রবার মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য হলদিয়া মহকুমা হাসপাতালে পাঠানো হয়।