কামদেবের এই মন্ত্র জপলেই নাকি চোখের পলকে আকৃষ্ট হবে আপনার মনের মানুষ

কামদেব৷ এই একটা নামই যেন না বলা অনেক কথা বলে দেয়৷ আর তাঁর উপাসনায় নিজেকে নিমজ্জিত করলে যে অনেক অসাধ্য সাধন হয়ে যেতে পারে, তা নিশ্চয় আর বলে দিতে হবে না৷ আর এই উপাসনা কিন্তু একেবারেই কষ্টসাধ্য নয়৷ আর যদি কামদেবের তির এসে বিদ্ধ করে আপনাকে তাহলে প্রেম-কাম সফল হতে বাধ্য, এমনটাই যুগ যুগ ধরে মেনে আসছেন অনেকে৷

পুরাণ মতে, মদন হলেন ভগবান বিষ্ণু ও দেবী লক্ষ্মীর সন্তান। প্রেমের দেবী রতি তাঁর স্ত্রী। তবে কিছু কিছু কাহিনিতে মদনকে ব্রহ্মার সন্তান হিসেবেও ব্যাখ্যা করা হয়েছে। প্রেম যেন বেঁধে রেখেছে জীবজগতকে৷ আর এর পেছনে মদন বা কামদেবের অবদান অনস্বীকার্য৷ তাই হিন্দু ধর্মে মদনকে গন্ধর্ব বা অর্ধদেবের মর্যাদা দেওয়া হয়ে থাকে। এই অর্ধদেবকে সন্তুষ্ট করতে ঠিক কি করতে হয় জানেন?

মনে করা হয়, কামদেব মন্ত্র হল এক ধরনের বশীকরণ মন্ত্র। তন্ত্র সাধনায় অনেক সময় এই মন্ত্রের প্রয়োগ করা হয় বলে জানা যায়। পছন্দের নারী-পুরুষকে আকৃষ্ট করা থেকে প্রেমে বাধা দূরীকরণের মতো কার্যসিদ্ধি সম্ভব এই মন্ত্রের সাহায্যে। বলা হয়ে থাকে নির্দিষ্ট এক শু‌ক্রবারে শুরু করতে হয় এই মন্ত্রের জপ। প্রথমে ফুল ও ধুপ-ধুনোসহ পুজো করতে হয় কামদেবের। এরপর বিশুদ্ধ ঘি-এর প্রদীপ জ্বালিয়ে, একটি কাগজে নিজের ভালবাসার মানুষের নাম লিখে শুরু করতে হয় মন্ত্রোচ্চারণ। মন্ত্রটি হল: ‘‘ওম কামদেবায় কামবশম করায় ****(প্রার্থিত ব্যক্তির নাম সহযোগে) হৃদয়ম স্তম্ভয়’’ ইত্যাদি। এই মন্ত্র উচ্চারণ করতে হয় ১০৮ বার। টানা তিন সপ্তাহ এমনটা করতে পারলেই নাকি মনের মানুষ ধরা দেবে আপনার কাছে৷

- Advertisement -

বৈজ্ঞানিক মতে এর কোনও ব্যাখ্যা না পাওয়া গেলেও এটা কিন্তু একাংশের বিশ্বাস৷ আর বিশ্বাসে তো মিলায় বস্তু এমনটা শোনাই যায়, তাই না? তবে আপনার ভালোবাসা যদি খাঁটি হয় এবং চেষ্টায় কোনও ত্রুটি না থাকে তাহলে কিন্তু সমগ্র প্রকৃতিও আপনার কাছে সেই কাছের মানুষকে টেনে আনার কাজ শুরু করে দেয়৷

Advertisement ---
---
-----