ত্বকের জ্বেল্লা বাড়াতে চান? দামী ক্রিম, লোশন কিনেও লাভ হচ্ছে না? ঘরোয়া পদ্ধতিতেই বাড়িয়ে তুলুন ত্বকের উজ্জ্বলতা৷ এক মাস পরই পুজো, ভাবছেন এত কম সময় সবকিছু হবে কী করে?

আর ঘরোয়া পদ্ধতি মানে সময় সাপেক্ষ৷ তবে তা একবারেই নয়৷ খুব কম সময়ের মধ্যেই ত্বকের সমস্ত সমস্যার সমাধান করবে এই হোমমেড রেমেডিসগুলি৷ ত্বকের জ্বেল্লার পাশাপাশি তৈলাক্ত ত্বক, ব্ল্যাকহেডস, ব্রুণের সমস্যা সবকিছুর উপায় রয়েছে৷

Advertisement

অয়লি স্কিন অর্থাৎ তৈলাক্ত ত্বকের জন্য বারতি আরও সমস্যা দেখা দেয় ত্বকে৷ তেলভাবের জন্য পিম্পল, কালচে দাগ, অ্যাকনে কত কী না হয়৷ তাই সবার আগে দরকার তৈলাক্ততা দূর করা৷ হলুদ থেত করে তাতে খানিকটা অ্যালোভেরা জেল মিশিয়ে দিন৷ রোজ ব্যবহার করুন৷ মাস্কটি শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন৷ কয়েক সপ্তাহে আপনি ফল পাবেন৷

মুখে ব্ল্যাকহেডস থাকলে দেখতে তো খারাপ লাগে আর আপনার কনফিডেন্সও হারিয়ে যায়৷ ব্ল্যাকহেডসের সমস্যায় অনেকেই চারকোল মাস্ক লাগান৷ এতে ভেতর থেকে ব্ল্যাকহেডস এবং ওয়াইটহেডস বের করে দেয় ঠিকই তবে কেমিকালের জন্য আপনার ত্বকে অল্প হলেও ক্ষতি করে৷ তাই ডিমের সাদা অংশের সঙ্গে লেবুর রস ভালো করে মিশিয়ে নিন৷ ত্বকের যে যে জায়গায় ব্ল্যাক হেডস হয় সেখানে মিশ্রণটি লাগিয়ে রাখুন৷ ৪০ মিনিট পর জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন৷

ত্বকের জ্বেল্লা ফিরিয়ে আনতে দুধ ব্যবহার করতে পারেন৷ এতে আপনার স্কিনকে নরম হবে৷ দুধের সঙ্গে টমেটোর রস মিশিয়ে থকথকে পেস্ট বানান৷ সারারাত মিশ্রণটি লাগিয়ে রাখলে ভালো তাছাড়া আপনার সুবিধা মতোও লাগাতে পারেন৷

ত্বকে ব্রুণের সমস্যা কমাতে দারচিনি খুব উপকারি৷ দারচিনি গুঁড়ো করে নিয়ে লাগিয়ে ফেলুন৷ কয়েক ঘন্টা লাগাবার পর জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন৷ সপ্তাহে তিনবার করলেই যথেষ্ট৷ এতেই উপকার পাবেন আপনি৷ তবে এই পদ্ধতিতে ব্রুণ দূর করার আগে অবশ্যই ত্বকের ডাক্তারের সঙ্গে কথা বলে নেবেন৷

----
--